দেশে ঘনীভূত হচ্ছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ,তাই আবারো জাতির উদ্দেশ্যে আজ রাত্রি আটটায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

দেশজুড়ে দিন দিন বেড়েই চলেছে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ আর এই ভাইরাস এর জেরে ভারতে বর্তমানে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে প্রায় 70 হাজার এর কাছাকাছি আর এই ভাইরাসের জেরে ভারতে মৃত্যু হয়েছে 2213 জনের। তবে আপাতত দেশজুড়ে জারি রয়েছে তৃতীয় দফার লকডাউন আর এই লকডাউন কি আগামী 17 মে পর্যন্ত চলবে তবে তার পরবর্তীকালে এই লকডাউন বাড়ানো হবে কীনা সে বিষয়ে গতকাল সোমবার দিন বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে টানা 6 ঘণ্টা বৈঠক সারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

যেখানে তিনি এই ভাইরাসের গতিবিধির উপর একাধিক প্রশ্ন করে বিভিন্ন রাজ্যের হাল জানতে চান রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দের কাছে। আর এই বৈঠকে একাধিক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা এই লকডাউনের সময়সীমাকে আগামী দিনেও বাড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কাছে আর্জি জানান।আর এই বৈঠক সম্পন্ন হবার পর থেকেই এই লকডাউন বাড়ানো যে আগামী দিনে হবে সে বিষয়ে একাধিক ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। অর্থাৎ আবারও জারি করা হবে লকডাউন, তবে এবার এই চতুর্থ দফার লকডাউন আগেকার লকডাউন গুলির তুলনায় একটু আলাদা হবে।

গতকালের এই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী দের কাছে করোনার জেরে ব্লুপ্রিন্ট চেয়ে পাঠিয়েছেন আর এটিকে আগামী 15 ই মে মধ্যে দিতে বলা হয়েছে।যেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের বলেন, ”আমি আপনাদের কাছে অনুরোধ করছি 15 মে’র মধ্যে আমার সঙ্গে স্ট্র্যাটেজি শেয়ার করুন। প্রত্যেকে নিজেদের রাজ্যে কীভাবে লোকজনের সঙ্গে ডিল করতে চান তা জানান। অর্থাৎ আগামী 15 মে তারিখের মধ্যে সেই পরিকল্পনা জানাতে বলা হয়েছে রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের।

তবে আজ আবারও রাত্রি আটটায় জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যেহেতু তৃতীয় দফার লকডাউন শেষ হবার কথা রয়েছে 17 ই মে সেহেতু তার পরবর্তীকালে কী পরিকল্পনা নেওয়া হবে সেই উদ্দেশ্যে আজকের এই ভাষণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। যদিও এক্ষেত্রে একাধিক সম্ভাবনা রয়েছে আগামী দিনেও লকডাউন বাড়ার আর তার এই চতুর্থ দফার লকডাউনে যেসব দিকগুলি গ্রহণ করা হতে পারে সেগুলো হলো…

1) এই চতুর্থ দফার লকডাউন চলাকালীন সমস্ত ট্রেন পরিষেবা চালু করা হবে না, এই ক্ষেত্রে শুধুমাত্র কয়েকটি ট্রেন পরিষেবা থেকে শুরু করা হবে।

2) আর যতদিন পর্যন্ত এই করোনাভাইরাস এর সঠিক কোন ঔষধ বেরোচ্ছে ততদিন পর্যন্ত এই মরন ভাইরাসের হাত থেকে বাঁচার একটাই উপায় রয়েছে যেটি হল সামাজিক দূরত্ব বোঝায় রাখা।

3) আর দেশের অর্থনীতির কথা ভেবে এই চতুর্থ লকডাউন চলাকালীন একাধিক ক্ষেত্রে ছাড় মিলতে পারে।তবে সেগুলি সম্পূর্ণ সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে এবং মুখে মাস্ক লাগিয়ে সম্পন্ন করা হবে।

4) আর এই চতুর্থ লকডাউনের সময় রাজ্যগুলিকে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে ছাড় দেওয়া হবে।তাছাড়া প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী তা জানতে পারা যাচ্ছে সেখানে জানা যাচ্ছে আগামী 17 ই মে’র পর রেড জোন গুলিতে জারি থাকতে পারে লকডাউন। তবে যেসব জায়গায় সংক্রমণ ছড়ায়নি সেই জায়গাগুলিতে নিয়ম শিথিল করা হতে পারে। যদিও এ ক্ষেত্রে রেড জোনগুলিতে সম্ভবত বন্ধ থাকবে পাবলিক ট্রান্সপোর্ট। পাশাপাশি সন্ধ্যে সাতটার পর না বেরোনোর নিয়ম জারি থাকবে।

Related Articles

Close