আপনার কাছাকাছি কী কোনও করোনা আক্রান্ত ব্যাক্তি রয়েছে? জানিয়ে দিবে সরকারের নতুন অ্যাপ আরোগ্য সেতু…

ভারতে করোনা ভাইরাস ঠেকানোর জন্য কেন্দ্রীয় সরকার সমস্ত রকম প্রচেষ্টা করে যাচ্ছে। এছাড়া দেশের প্রত্যেকটি রাজ্যের রাজ্য সরকারও কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন যাতে এই ভাইরাসের সংক্রমণ রোখা যায়। করোনা ভাইরাস নিয়ে সচেতন করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে ‘মাইগভ অ্যাপ’ আনা হয়েছিল কিছুদিন আগে। এরপরে চালু হলো আরেকটি নতুন অ্যাপ। এই অ্যাপটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘আরোগ্য সেতু’ (Aarogya Setu)

এই অ্যাপটি স্মার্ট ফোনের লোকেশন বা ব্লুটুথের মাধ্যমে ব্যবহারকারী কে জানিয়ে দেবে যে তার আশেপাশে কোন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী আছেন কিনা। লোকেশন ডেটা অন করলে ওই অ্যাপটি জানতে পারবে করোনাতে আক্রান্ত ব্যক্তিটি কোথায় আছেন। এরপর ব্লুটুথ কানেক্টিভিটি অন করলে সেই অ্যাপটি ওই মোবাইল ব্যবহারকারীকে জানিয়ে দেবে যে তিনি করোনায় আক্রান্ত ব্যক্তিটি থেকে 6 ফুটের মধ্যে রয়েছে কিনা। অর্থাৎ এই অ্যাপটি ব্যবহার করলে বোঝা যাবে যে ওই মোবাইল ব্যবহারকারী ব্যক্তিটি করোনা সংক্রমণ Zone এ রয়েছেন কিনা।

যদি আরোগ্য সেতু ব্যবহারকারী “হাই রিস্ক জোনে” থাকেন তাহলে সেই অ্যাপটি তরফ থেকে তাকে পরামর্শ দেওয়া হবে এখনি পরীক্ষা করান। আপনার নিকটবর্তী কোথায় COVID-19 এর পরীক্ষা করা হচ্ছে তা জানার জন্য সরাসরি ফোন করুন 1075 নাম্বারে। সেখানে একটা appointment করুন। এবং করোনাভাইরাস থেকে দূরে থাকার জন্য কী কী পদ্ধতি অবলম্বন করে চলতে হবে সেই সম্পর্কে তথ্য দেবে এই অ্যাপ। এছাড়া কোন ব্যক্তি যদি এই ভাইরাসে আক্রান্ত হন বা এই ভাইরাসের সংস্পর্শে আসেন, তবে তাকে প্রয়োজনীয় সরকারি তথ্য দেবে এই অ্যাপ।

কিন্তু এই অ্যাপে ওই ব্যক্তির গোপনীয়তা রক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে ফলে সংশ্লিষ্ট ওই ব্যক্তি ছাড়া অন্য কেউ সেই অ্যাপে সংরক্ষিত তথ্য দেখতে পাবেন না। এবং এই অ্যাপের মাধ্যমে ওই ব্যক্তিটি জানতে পারবেন তার দেহে COVID-19 এর লক্ষণ আছে কী না। এই অ্যাপে রাজ্যের হেল্পলাইন নাম্বার দেওয়া হয়েছে। এই অ্যাপটি আপনারা গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারেন। সম্প্রতি খবর আছে বুধবার তামিলনাড়ুতে সবচেয়ে বেশি করোনাতে আক্রান্ত হয়েছে। দক্ষিণের রাজ্যটিতে মোট 160 জনের শরীরে এই ভাইরাস পাওয়া গেছে। এরপরে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র যেখানে মোট 86 জনের শরীরে এই ভাইরাস পাওয়া গেছে। ফলে মহারাষ্ট্রে মোট করোনাতে আক্রান্তের সংখ্যা হয়ে দাঁড়ালো 335 জন এবং মৃত্যু হয়েছে 12 জনের আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন 42 জন।

Related Articles

Close