এখন কোন গ্যারান্টি ছাড়াই প্রধানমন্ত্রীর মুদ্রা যোজনায় পেয়ে যাবেন 10 লক্ষ টাকা পর্যন্ত লোন, কীভাবে নিবেন? বিস্তারিত জানতে

জীবনে নতুন কিছু শুরু করার জন্য আমাদের প্রয়োজন হয় মোটা অর্থের। সেটা নতুন বাড়ি করাই হোক বা ফ্ল্যাট কেনা হোক বা নতুন ব্যবসা হোক। এই অর্থ পাওয়ার জন্য আমাদের লোনের সাহায্য নিতে হয়। কিন্তু জ্ঞানের অভাবে অনেক সময় লোন পাওয়া যায় না। এই অবস্থায় মানুষকে সুরাহা দিতে পারে প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনাটি।

এই যোজনায় মাধ্যমে লোন পাওয়া যেতে পারে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত। এই লোনের জন্য তিনটি বিভাগ রয়েছে। শিশু-কিশোর এবং তরুণ এই তিন আওতায় ব্যাঙ্কের কাছে থেকে লোনের জন্য আবেদন করা যেতে পারে। ঋণের টাকা হিসেবে নামকরণ করা হয়েছে তিন ধরনের।

শিশু লোন :-

শিশু লোন পর্যায়ে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত লোন পেতে পারেন। এর জন্য গ্রাহককে ১০% থেকে ১২% সুদ দিতে হতে পারে। এই লোনের অর্থ শোধ করার সর্বোচ্চ সময়সীমা হল ৫ বছর। যে সমস্ত আবেদনকারীরা প্রথম ব্যবসা শুরু করছেন তাদের জন্য এই লোন পাওয়া যেতে পারে।মুদ্রা লোন

কিশোর লোন-

যেসকল ব্যবসায়ীরা ব্যবসা শুরু করার পর অর্থের প্রয়োজন অনুভব করছেন তারা এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারেন। এই বিভাগের লনে ৫০ হাজার টাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পাওয়া যেতে পারে। সুদের হার নির্ভর করবে প্রতিষ্ঠান উপর এবং কত বছরে ঋণ শোধ করবে তার উপর।

তরুণ লোন-

ব্যবসা বৃদ্ধি করার জন্য অর্থের প্রয়োজন হলে ব্যবসায়ীরা এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারেন। এই পর্যায়ে ব্যবসায়ীরা আবেদনের ভিত্তিতে ৫ লক্ষ টাকা থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ পেতে পারেন। সুদের হার এবং পরিশোধের সময়সীমা নির্ধারণ করবে ব্যাঙ্ক।লোন

কোন ধরনের ব্যবসার জন্য এই লোন পাওয়া যেতে পারে—

খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াকরণ, পোলট্রি, মাছ চাষ, মৌমাছি পালন, পশুসম্পদ পালন, কৃষি-শিল্প, কৃষি বিপণনের ক্ষেত্রে এই লোনের আবেদন করা যেতে পারে।

সেলুন, জিম, সেলাইয়ের দোকান, ওষুধের দোকান, জিনিসপত্র মেরামতির দোকান এবং ড্রাই ক্লিনার্স, ফটোকপি ইত্যাদির ব্যবসা করার জন্য অর্থের প্রয়োজন হলে ব্যবসায়ীরা এই লোনের জন্য আবেদন করতে পারেন।

ট্র্যাক্টর, অটোরিকশা, ট্যাক্সি, ট্রলি, পণ্য পরিবহনের যানবাহন, ৩ চাকার গাড়ি, ই-রিকশা কেনার জন্য যদি অর্থের প্রয়োজন হয় সে ক্ষেত্রে এই লোনের সাহায্য নেওয়া যেতে পারে।