এবার এয়ারের মাধ্যমেই হবে ফোন চার্জ, Xiaomi নিয়ে এল দুর্দান্ত টেকনোলজি

মানুষের হাতে এখন সময় কম৷ তাই সবকিছুই মানুষ চায় জলদি হোক৷ সেই কারণেই চার্জিং টেকনোলজি নিয়ে প্রতিটি স্মার্টফোন কোম্পানি বর্তমান সময়ে কাজ করছে। ইতিমধ্যেই আমরা ১২৫ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং টেকনোলজি লঞ্চ হয়েছে। মাত্র ১৩ মিনিটেই ৪,০০০ এমএএইচ ব্যাটারিকে ফুল চার্জ করে দিতে পারে। এছাড়াও ওয়্যারলেস চার্জিংয়েরও জনপ্রিয়তা বাড়ছে। তবে Xiaomi আজ এমন একটি চার্জিং টেকনোলজি এনেছে, যা এখনো  অনেক কোম্পানি এখনও ভাবতেই পারেনি। এই স্মার্টফোন কোম্পানি রিমোট এয়ার চার্জিং টেকনোলজি লঞ্চ করেছে (remote air charging technology), যার নাম Mi Air Charge Technology।

এই চার্জিং টেকনোলজির মাধ্যমে আপনি চার্জারের কাছে না থাকলেও  দূর থেকে স্মার্টফোন চার্জ করতে পারবেন।  মি এয়ার চার্জিং টেকনোলজিতে ফোনকে তার দিয়ে চার্জারের সাথে যুক্ত করার কোনো দরকার নেই। প্রসঙ্গত ওয়্যারলেস চার্জিংয়ের ক্ষেত্রেও ফোনটিকে চার্জিং প্যাডের সাথে যুক্ত করতে হয়। কিন্তু Mi Air Charge Technology দূর থেকেই  চার্জ করতে পারবে। যদিও Xiaomi বাণিজ্যিকভাবে এই চার্জার কবে বাজারে আনবে সে বিষয় এখনও কিছু জানায়নি৷

এই রিমোট এয়ার চার্জিং টেকনোলজি কিভাবে কাজ করে?
সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, আইসোলেটেড চার্জিং পাইলটি পাঁচটি অ্যান্টেনা দ্বারা সাজানো।  এগুলি স্মার্টফোনের অবস্থানকে সঠিকভাবে সনাক্ত করতে পারে। সেইসঙ্গে  Xiaomi একটি ছোট অ্যান্টেনা অ্যারে তৈরী করেছে,  এর সঙ্গে স্মার্টফোনের জন্য “বিকন অ্যান্টেনা” এবং “রিসিভিং অ্যান্টেনা অ্যারে” বিল্ট ইন থাকবে।

একদম সস্তায় 365 দিনের জন্য দুর্দান্ত প্ল্যান নিয়ে হাজির Jio,VI মিলবে Unlimited ডাটা সহ কলিং

Xiaomi জানিয়েছে, “বিকন অ্যান্টেনা কম বিদ্যুৎ ব্যবহারের মাধ্যমে অবস্থান তথ্য ব্রডকাস্ট করে। আবার ১৪টি অ্যান্টেনা নিয়ে গঠিত রিসিভিং অ্যান্টেনা অ্যারে, চার্জিং পাইল দ্বারা নির্গত মিলিমিটার তরঙ্গ সংকেতকে রেকটিফায়ার সার্কিটের মাধ্যমে বৈদ্যুতিক শক্তিতে রূপান্তর করে এবং sci-fi চার্জিং অভিজ্ঞতাকে বাস্তবে রূপান্তর করে।”

কোম্পানির দাবি, Mi Air Charge Technology এর প্রাথমিক মডেল কয়েক মিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে একটি ডিভাইসের জন্য ৫ ওয়াট রিমোট চার্জিং সরবরাহ করতে পারবে। এছাড়াও একই সময়ে ৫ ওয়াট রিমোট চার্জিং সরবরাহ করে চার্জ করতে পারবে। শাওমির তরফে জানা যাচ্ছে, আপাতত এই টেকনোলজি স্মার্টফোনের জন্য আনা হলেও, কিছুদিন পরে স্মার্টওয়াচ, ব্রেসলেট সহ অন্যান্য ডিভাইসের জন্য এই প্রযুক্তি  ব্যবহার করা যাবে।