এবার ডিজিটাল রেশন কার্ডকে করতে হবে আধার কার্ডের সাথে সংযুক্তিকরণ, না হলে মিলবে না রেশন

ভারতীয় নির্বাচন কমিশনার এর তরফ থেকে পহেলা সেপ্টেম্বর থেকে শুরু করা হয়েছে ভোটার কার্ডের যাচাইকরণের প্রক্রিয়া আর এই প্রক্রিয়াটি আগামী মাসের 15 অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। তার মধ্যে করিয়ে নিতে হবে সবাইকে তাদের ভোটার কার্ডের ভেরিফিকেশন ,আর তা না হলে বড় সমস্যায় পড়তে পারেন তারা। তবে এখন আরো একটি খবর সামনে বেরিয়ে আসছে যেখানে আজ থেকেই ডিজিটাল রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ডের নথিভুক্তকরণের কাজ শুরু করে দিয়েছে খাদ্য দপ্তর।

বহুদিন আগে থেকেই রাজ্যের রেশন ডিলারদের প্রায় সকলেই দুর্নীতিতে অভিযুক্ত বলে অভিযোগ উঠতে থাকে। প্রায় একুশ হাজার রেশন দোকানের মধ্যে, কুড়ি হাজারটির বিরুদ্ধেই দুর্নীতির অভিযোগ জমা পড়েছে খাদ্য দফতরে। অভিযোগ পেয়ে তদন্তেও নেমে পড়েছে রাজ্য সরকার। তবে দুর্নীতির অভিযোগ মানতে নারাজ ছিল রেশন ডিলারদের সংগঠনগুলি। তাই এবার এই দুর্নীতির হারকে কমতেই চলতি সপ্তাহের মঙ্গল ও বুধবার এই দুদিন ধরে রেশন দোকানে ইলেকট্রিক পয়েন্ট অফ সেলস (ই-পস) যন্ত্রে নথিভুক্তকরণের কাজ করা হবে।

তবে এছাড়াও খাদ্য দপ্তরের স্থানীয় অফিসে জানানো হয়েছে সোমবার থেকে শনিবার পর্যন্ত কাজের দিনগুলিতে নথিভুক্তকরন করার প্রক্রিয়াটি করা যাবে সেখানেও। খাদ্য দপ্তরে বিজ্ঞতিতে জানানো হয়েছে এসব দোকানের মাধ্যমে সরকারি ভর্তুকিতে চাল-গম নিতে গেলে এই বিপুলসংখ্যক আধার কার্ডে নথিভুক্ত করাতে হবে। আর এই নথিভুক্তকরণ করার প্রক্রিয়াটি যদি আগামী দিনে যদি না করানো হয় তাহলে রেশন কার্ডের গ্রাহকেরা আগামী দিনে ভর্তুকিতে খাদ্য পাবেন না।

গত 18 সেপ্টেম্বর খাদ্য দপ্তর এর তরফ থেকে যে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে সেখানে জানানো হয়েছে নথিভুক্তকরণের কাজ চলার সময় সপ্তাহে ওই দুই দিন রেশন গ্ৰাহকেরা কোন প্রকার খাদ্য সামগ্রী পাবেন না। এই বিষয়ে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানিয়েছেন যেহেতু আধার কার্ডের সঙ্গে রেশন কার্ড নথিভুক্তকরণ একটা বড় কাজ সেহেতু এই কাজের জন্য কয়েক মাস সময় লেগে যেতে পারে। আপাতত বুধবার থেকে রবিবার সপ্তাহে পাঁচদিন রেশন দোকানে খাদ্য সংগ্রহ করতে পারবেন রেশন গ্রাহকেরা। খাদ্য দপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে রেশন গ্রাহকেরা তাদের পরিবারের সব সদস্যের আধার নম্বর দিয়ে নথিভুক্তকরণের পদ্ধতিটি সম্পূর্ণ করাতে পারবেন।

এই নথিভুক্তকরণ প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হয়ে যাবার পরেই এবার থেকে আধার নম্বর ই-পস যন্ত্রে আঙুল ছাপের মাধ্যমে যাচাই করা হবে রেশন নেভার আগে। আর এরপরই এবার থেকে আঙুল ছাপের মাধ্যমেই পরিবারের যে কোন সদস্য রেশনের সামগ্রিকে নিতে পারবেন। তবে এবার গ্রাহকদের নাম মোবাইল নম্বর নথিভুক্ত করা হবে আরে রেশন নেওয়ার সময় নথিভুক্ত মোবাইলে আসবে ওটিপি আর সেই ওটিপিকেই ই-পস যন্ত্রে দিতে হবে। খাদ্য দপ্তর এর তরফ থেকে জানানো হয়েছে রেশন ব্যবস্থায় স্বচ্ছতা আনার জন্যই এরকম পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

জাতীয় খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্প ও রাজ্য সরকারের দুটি খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পে প্রায় 9 কোটি 10 লক্ষ গ্রাহকদের ডিজিটাল রেশন কার্ড রয়েছে।কার্ড করার জন্য বিশেষ অভিযান চলছে এখন এটা কাদের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।তবে এখন নথিভুক্তকরণের কাজ শুরু হলে স্বাভাবিক ভাবে এই সপ্তাহে নির্দিষ্ট দুই দিনে রেশন দোকান গুলোতে ব্যাপক হারে বাড়তে পারে গ্রাহকদের তাই এর বিকল্প পথ হিসাব আধার কার্ডের নথিভুক্তকরণ করাকে খাদ্য দপ্তরের স্থানীয় অফিসেও করা হয়েছে। তাই দেরী না করে এখনই করে ফেলুন আপনার ডিজিটাল রেশন কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ডের সংযুক্তিকরণ। পোষ্টটি ভাল লেগে থাকলে আপনার প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

The India Desk

Indian famous bengali portal, covers the breaking news, trending news, and many more. Email: theindianews.org@gmail.com

Related Articles

Close