কুলভূষণ মামলার রায় ইংরেজিতে করা হয়েছিল বলে বুঝে উঠতে পারেনি পাকিস্তান, বক্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং এর…

এবার কুলভুষণ মামলায় বড়সড় সাফল্য পেল ভারত।তবে এবারে পাকিস্তান যে আন্তর্জাতিক মহলে কোণঠাসা হয়ে গেছে তা কোন মতেই মানতে নারাজ হয়েছে ইসলামাবাদ।এত বড় ব্যর্থতায় নিজেদের নাক কেটে যাওয়া পরের যাত্রা ভঙ্গ করার মত তাদের দাবি নৈতিক জয় নাকি হয়েছে পাকিস্তানেরই৷আর তারপরই পাকিস্তানের এরূপ বক্তব্যকে নিয়ে কটাক্ষ করলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং।গত বুধবার দিন তিনি বলেন পাকিস্তান আসলে আন্তর্জাতিক আদালতে যে রায় প্রকাশ হয়েছিল সে রায়ের কপি করে বুঝতে পারেনি হয়তো।

কারণ সেই রায় পুরোটাই ইংরাজিতে লেখা ছিল, বিচারকরা রায়ও দিয়েছেন ইংরাজিতে৷ তাই হয়তো পাক প্রশাসনের অধিকারীরা এই রায়ের ঠিক মানেটা বুঝে উঠতে পারেনি। আর তারপরই স্বাভাবিকভাবেই গিরিরাজের এইরূপ ব্যঙ্গ বুঝতে ভুল হয়নি সোশ্যাল মিডিয়ার৷ নেটদুনিয়ার দেওয়াল ভরে উঠেছে এর রি- ট্যুইটে৷ পাকিস্তান সরকারের অফিসিয়াল ট্যুইটের রিট্যুইট করে সেদেশের সরকারকে একহাত নিয়েছেন গিরিরাজ সিং৷ তিনি এদিন কটাক্ষ করে আরো বলেন এটা তোমাদের দোষ নয়, যে আন্তর্জাতিক আদালতের রায়টাই ইংরাজিতে দেওয়া হয়েছিল৷

এদিন কুলভূষণ মামলার রায় আদালতের রায় প্রকাশ্যে আসার পর প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি বলেন কুলভূষণ যাদবের রায় পাকিস্তানের বড় সাফল্য এবং নৈতিক জয়। তবে এখানেই শেষ নয় এই দিন কুরেশি দাবি করে, কুলভূষণ নাকি জেরায় স্বীকার করেছেন যে তিনি আসলে গুপ্তচরবৃত্তির জন্যই পাকিস্তানে এসেছিলেন। তিনি আরও বলেন, কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ড পাকিস্তানকে পুনর্বিবেচনা করতে বলেছে অর্থাৎ, পাকিস্তানই ঠিক করবে কী হবে। এতে নাকি আদতে পাকিস্তানের আইনি ব্যবস্থার উপর আস্থা রাখা হয়েছে বলে দাবি তাঁর।

যেমন কি আপনারা জানেন গত বুধবার দিন এই গুরুত্বপূর্ণ মামলার রায় দেওয়া হয়েছে আন্তর্জাতিক আদালতের তরফ থেকে। আর সেই রায় এর মধ্যে পাকিস্তানকে কুলভূষণের মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ খতিয়ে দেখতে বলা হয়েছে। অর্থাৎ এই মুহূর্তে পাকিস্তান কুলভূষণকে ফাঁসি দিতে পারবে না।পাক আদালতের মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশে স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছে। 42 পাতার অর্ডারে সেই রায়ের উল্লেখ রয়েছে।এর পাশাপাশি ভারত যে বারেবারে কনস্যুলার অ্যাকসেস চেয়েছিল, তা পাকিস্তানের দেওয়া উচিৎ বলেও মন্তব্য করা হয়েছে।

আর কুলভূষণের ক্ষেত্রে পাকিস্তান ভিয়েনা কনভেনশন ভেঙেছে বলে আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে উল্লেখ ও করা হয়েছে। 2016 সালের 3 মার্চ ভারতের প্রাক্তন নৌ-সেনা অফিসার কুলভূষণকে বালুচিস্তান থেকে গ্রেফতার করে পাক নিরাপত্তা বাহিনী। আর তারপরই কুলভূষণের বিরুদ্ধে পাক সামরিক আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে ভারত আন্তর্জাতিক ন্যায় বিচার আদালতের দ্বারস্থ হয়৷

The India Desk

Indian famous bengali portal, covers the breaking news, trending news, and many more. Email: theindianews.org@gmail.com

Related Articles

Close