সংরক্ষণ নীতি নয়, যোগ্যতাই হোক মাপকাঠি – সুপ্রিম কোর্ট

সংরক্ষিত শ্রেণির আওতায় চাকরিপ্রার্থী হলেও  নিয়ম কে মান্যতা দেওয়ার জন্য মেধাবী প্রার্থীদের চাকরির সুযোগ থেকে বঞ্চিত  করা যাবে না। শুক্রবার কমিউনাল রিজার্ভেশন ধারণার বিরুদ্ধে এই রায় দিয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্ট।  সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এই রায় ঘোষণা করেছেন । সেখানে বলা হয়েছে সংরক্ষণ সুবিধার নিরিখে শূন্যপদ পূরণের যে কোন পদ্ধতির ক্ষেত্রে যোগ্যতাকে অবশ্যই প্রাধান্য দিতে হবে।

 

 

মেধাবী প্রার্থীরা তাদের শ্রেণী বর্ণ নির্বিশেষে যাতে সুযোগ পেতে পারে। স্বাধীনতা সংগ্রামী, প্রাক্তন সেনাকর্মীদের বিশেষ শ্রেণির অধীনে উত্তরপ্রদেশে মহিলা কনস্টেবল এর শূন্যপদ পূরণ করা হয়েছিল, সেই বিতর্কের সূত্র ধরেই সুপ্রিম কোর্টের এই রায়।

 

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এস রবীন্দ্র ভাট লিখিত ভাবে জানিয়েছেন, “যে কোনো ধরনের সংরক্ষণ সরকারি পরিষেবাগুলিতে প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার পদ্ধতি। কিন্তু এগুলিকে কখনোই অনড় হিসেবে দেখা হবে না। সাধারণ প্রতিযোগিতামূলক ক্ষেত্রগুলিতে কোনো প্রার্থীর যোগ্যতামান যেন বিঘ্নিত না হয়”।

 

 

তিনি আরও লিখেছেন, “যোগ্যতা উপেক্ষা করে এই অবস্থা চলতে থাকলে শেষ পর্যন্ত তা সম্প্রদায়গত সংরক্ষণে পর্যবসিত হবে, প্রতিটি সামাজিক বিভাগ নিজের সংরক্ষণের সীমার মধ্যে সীমাবদ্ধ হয়ে পড়বে। তাই অসংরক্ষিত ক্ষেত্রে সকলের জন্য উন্মুক্ত প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা থাকে এবং সেখানে প্রার্থীর যোগ্যতাই একমাত্র মানদণ্ড হয়”।

 

ভারতের লজ্জাজনক হারের পর, শাস্ত্রী’কে বরখাস্তের দাবি

হাইকোর্টের একাধিক রায়ে বলা হয়েছিল, তফসিলি শ্রেণি (এসসি) বা তফসিলি উপজাতি (এসটি) বা অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণির (ওবিসি) মেধাবী প্রার্থী সাধারণ / উন্মুক্ত বিভাগে অংশ নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে তাঁর শূন্যপদে সংরক্ষিত বিভাগের অন্য প্রার্থী সুযোগ পাবেন। আবার স্বাধীনতা সংগ্রামীর পরিবার, প্রাক্তন সেনাকর্মীর মতো বিশেষ শ্রেণির জন্য নির্দিষ্ট করা আসনে শূন্যপদ থাকলে সেখানেও এসসি / এসটি / ওবিসি প্রার্থীরা সুযোগ পাবেন। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট শুক্রবার এই নীতি খারিজ করেছে৷ কারণ এক্ষেত্রে যোগ্যতা নয়, সামাজিক শ্রেণির নিরিখে যাবতীয় নিয়োগ হচ্ছে৷

 

 

সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি স্পষ্ট ভাবেই লিখেছেন, “শূন্যপদ পূরণের ক্ষেত্রে কোনো যোগ্য প্রার্থীর পরিবর্তে শুধুমাত্র এসসি, এসটি বা ওবিসির মতো সংরক্ষিত শ্রেণির প্রার্থীকে নিয়োগ করা যাবে না। যে কোনো অনুমতিযোগ্য সংরক্ষণের সাপেক্ষে সরকারি কর্মসংস্থান এবং প্রার্থীদের নির্বাচনের সুযোগগুলি অবশ্যই যোগ্যতার ভিত্তিতে হতে হবে”।এদিন সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি জানায় , “এ ভাবে চলতে থাকলে সাধারণ শ্রেণির যোগ্য প্রার্থীর প্রতি অবিচার করা হবে”।