Categories
দেশ নতুন খবর বিশেষ লাইফ স্টাইল

অত্যাবশ্যকীয় নয়, এমন সামগ্রী এই লকডাউনে সরবরাহ করা যাবে না, ই-কমার্স সংস্থাগুলোকে নির্দেশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের..

আজ রবিবার দিন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে জারি করা এক বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেওয়া হল এই মুহূর্তে ই-কমার্স সংস্থাগুলি অত্যাবশ্যকীয় পণ্য ছাড়া অন্য কোনো পণ্য বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌঁছে দিতে পারবে না। এ বিষয়ে একটি প্রেস বিবৃতিতে MHAএর তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নয় এমন সামগ্রী দেশের কোথাও বিক্রি করতে পারবে না এই মুহূর্তে ই-কমার্স সংস্থাগুলি। তবে যেমনটা আমরা জানি এর আগে কেন্দ্রের তরফ থেকে অনুমতি দেওয়া হয়েছিল অবশ্য মোবাইল ফোন, টিভি, রেফ্রিজারেটর মতো পণ্য সামগ্রী গুলি ই-কমার্স  সংস্থাগুলি লকডাউন এর মধ্যে যে জায়গা গুলি হটস্পট  নয় এমন জায়গা গুলিতে বিক্রি করতে পারবে। তবে কয়েকদিন যেতে না যেতেই নিজের এই সিদ্ধান্তকে বদলে ফেলল কেন্দ্র।স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে দেশজুড়ে চলছে লকডাউন, আর এই লকডাউন চলছে দেশে করোনা সংক্রমনের হার কে রুখতে তাই এই বিষয়ে কোন প্রকার ঝুঁকি নিতে চাইছে না কেন্দ্র। তাই এই সময় অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নয় এমন কোন সামগ্রী বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার অনুমতি ই-কমার্স সংস্থাগুলিকে দিচ্ছে না কেন্দ্র। প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা জানি লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে দেশজুড়ে বন্ধ রয়েছে ই-কমার্স সংস্থাগুলি যার মধ্যে নাম রয়েছে অ্যামাজন, ফ্লিপকার্ট আরো কয়েকটি ই-কমার্স সংস্থার।

তবে আবারও দ্বিতীয়বারের জন্য যখন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তরফ থেকে লকডাউন সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয় তখন তিনি জানিয়েছিলেন আগামী কুড়ি এপ্রিলের পরে দেশের যে জায়গাগুলি করোনা সংক্রমণহীন সেই জায়গাগুলিতে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক করা হবে জনজীবন। তবে সেই জায়গা গুলির নাম সরকারের তরফ থেকে ঠিক করা হবে।আর প্রধানমন্ত্রীর এরকম এক বার্তার পর থেকেই করোনা হটস্পট বলে চিহ্নিত নয় এমন জায়গা গুলিতে আগামী কুড়ি এপ্রিলের পর থেকে পণ্য সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল ফ্লিপকার্ট সহ অ্যামাজন ই-কমার্স সংস্থাগুলি। তবে আজ আবার রবিবার দিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে জারি করা এই নির্দেশিকার পর এটা আবারও স্পষ্ট হয়ে গেল যে আপাতত সেরকম টা হচ্ছে না।