ভারতের বিরুদ্ধে চক্রান্ত এবার ভারী পড়ল পাকিস্তানের, তেল, টাকা কিছুই পাকিস্তানকে দেবে না আর সৌদি…

আরো একবার ধাক্কা খেলো পাকিস্তান। এবার পাকিস্তানের বন্ধু দেশ সৌদি আরব ধাক্কা দিল পাকিস্তান কে। এর ফলে পাকিস্তান এবং সৌদি আরবের যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল তা শেষ হয়ে গেল। এবার থেকে নতুন করে পাকিস্তানকে কোন প্রকার ঋণ দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছে সৌদি। শুধু তাই নয় পাকিস্তানকে আর তেল সরবরাহ করা হবে না বলেও সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব। এর জেরে সমস্যায় পড়ে গেছে পাকিস্তান। আর আমরা সবাই জানি সৌদি আরব যদি তেল সরবরাহ করা বন্ধ করে দেয় তাহলে পাকিস্তান অচল হয়ে পড়বে।

 

তাই সৌদি আরবের এই সিদ্ধান্তের ফলে পাকিস্তান সরকারের চিন্তায় মাথায় হাত পরে গেছে। মিডিল ইস্ট মনিটর নামক এক সংবাদ মাধ্যমে এই তথ্য প্রকাশিত হয়। এই সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে যে, পাকিস্তানের সঙ্গে পুরনো চুক্তি বাতিল করতে চাইছে সৌদি আরব। এর ফলে পাকিস্তানকে 1 বিলিয়ন ডলার এর মত ফেরত দিতে হবে। সম্প্রতি 2018 সালে নভেম্বর মাসে 6.2 বিলিয়ন ডলারের চুক্তি হয়েছিল। আর এই চুক্তির মধ্যে 1 বিলিয়ন ডলার বাকি ছিল। এই 6.2 বিলিয়ন ডলারের মধ্যে 3 বিলিয়ন ডলার তেল সরবরাহ করার কথা ছিল এবং বাকি 3.2 বিলিয়ন ডলার ঋণ হিসেবে দেওয়ার কথা ছিল পাকিস্তানকে।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে পাকিস্তান সফরে আসেন প্রিন্স মহম্মদ বিন সলমন। আর ওই সফরে গিয়ে তিনি এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। এতদুর পর্যন্ত সমস্ত ঠিকঠাক থাকলেও অন্য জায়গায় সমস্যা সৃষ্টি হয়। জানা গেছে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে সৌদি আরবকে হুমকি দেয় পাকিস্তান। এবং ভারতের বিরুদ্ধে একজোট হওয়ার জন্য সৌদি আরবে নেতৃত্বাধীন অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক কোঅপারেশন বা ওআইসি এর কাছে আবেদন করে পাকিস্তান। কিন্তু পাকিস্তানের এই ধরনের প্রস্তাবে রাজি হয়নি সৌদি আরব।

 

সৌদি আরব এই প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেসি সৌদি আরবকে সতর্ক করে বলেন যে যদি তারা এই প্রস্তাবে রাজি না হয়, তাহলে ওআইসির আলাদা বৈঠক ডাকবে এবং পাকিস্তান ও পাকিস্তানের বন্ধু রাষ্ট্রগুলিকে নিয়ে একটি দল গঠন করবে। পাকিস্তানের এই বার্তা দেওয়ার পরে প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হয়ে যায় সৌদি আরব। আর এর জেরেই সৌদি আরবের সিদ্ধান্ত যে পাকিস্তানকে আর কোন ভাবে সাহায্য করা হবে না। শুধুমাত্র সৌদি আরব নয় কোন ওআইসি ওআইসি সদস্য দেশ গুলি ও পাকিস্তানের পক্ষে হয়নি। তাই এ ব্যাপারেও পাকিস্তান একেবারে এক ঘরে হয়ে গেছে।