নেই ডিজিটাল রেশন কার্ড, এমন কী নেই বিশেষ কুপন! তবুও মিলবে রেশন, নির্দেশ নবান্নের

করোনা সংক্রমণ রুখতে সারা দেশজুড়ে চলছে লকডাউন।আর এই লকডাউনে যাতে গরীব মানুষেরা দুবেলা- দুমুঠো খেতে পায় তার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্য সরকার দুই পক্ষের তরফ থেকেই বিনামূল্যে রেশনের চাল ও গম দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। ফ্রিতে চাল ও গম দেওয়া ইতিমধ্যেই গত মাস থেকে চালু করে দিয়েছে সব রেশন দোকানে। কিন্তু এত দূর পর্যন্ত সমস্ত কিছু ঠিক ঠাক থাকলেও যারা এখনো নতুন রেশন কার্ড করিয়ে উঠতে পারেনি বা আবেদন করেও এখনো পর্যন্ত পাননি তারা এই ফ্রীতে চাল ও গম পাওয়া থেকে বঞ্চিত হয়েছেন।

যাদের এখনও পর্যন্ত পুরনো রেশন কার্ড রয়েছে তাদের জন্যও এবার চাল ও গম পাওয়ার ব্যবস্থা করে দিতে চলেছে সরকার। কারণ ঘরবন্দি সবাইকে রেশন দেওয়ার দায়িত্ব সরকারের। তাই সরকারের তরফ থেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যাদের ডিজিটাল রেশন কার্ড নেই বা যারা আবেদন করার পরেও এখনো পর্যন্ত ডিজিটাল রেশন কার্ড পাননি এমনকি রেশন কুপন মেলেনি সেই সমস্ত গ্রাহকদেরও রেশন দেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে সরকারের তরফ থেকে। এই সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি খুব তাড়াতাড়ি খাদ্য দপ্তর এর তরফ থেকে জারি করা হবে বলে খবর সূত্রে জানা গিয়েছে।

সরকারের তরফ থেকে বিজ্ঞপ্তি জারি করা হলে প্রত্যেক মাথাপিছু 5 কেজি করে চাল দেওয়া হবে। ইতিমধ্যেই কলকাতা পুরসভা এই প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে বলে জানা গেছে। রেশন নিতে আগ্রহী গ্রাহকেরা যারা এখনো পর্যন্ত প্রাপ্ত কুপন পাননি তাদের কলকাতা পুরসভার তরফ থেকে কুপন দেওয়া হচ্ছে। এরপর বাকি জেলাগুলিতেও জেলা শাসকদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এই প্রক্রিয়া যত তাড়াতাড়ি সম্ভব শুরু করার। এমন কী এ সংক্রান্ত একটি অ্যাপ তৈরি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সরকারের তরফ থেকে।

খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক এ বিষয়ে জানিয়েছেন যে,’ যে সমস্ত মানুষের পুরনো রেশন কার্ড রয়েছে তারাও এবার থেকে রেশন পাবেন। জেলাশাসক এই পুরো বিষয়টি দেখবেন। এই অ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকরা জেলা প্রশাসনের কাছে রেশন কুপনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। যারা এখনো পর্যন্ত ডিজিটাল রেশন কার্ড পাননি মূলত তাদের জন্যই এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে সরকারের তরফ থেকে। গ্রামের ক্ষেত্রে গ্রাহকরা এই অ্যাপের মাধ্যমে মহকুমা শাসকের কাছে আবেদন করতে পারবেন এবং শহর বা পুর এলাকায় পৌরসভার বুরো অফিসে আবেদন করতে পারবেন গ্রাহকরা।

তবে গ্রাহকদের আবেদন ভুয়া কীনা সেই বিষয়টিও দেখা হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে সরকারের তরফ থেকে। পুরনো রেশন কার্ড যাদের ছিল তারাই লকডাউনের সময় রেশন থেকে বঞ্চিত ছিলেন তাই এ সময়ে তাদের জন্য ব্যবস্থা করা সরকারের প্রয়োজন ছিল। আর এমন সিদ্ধান্তের পর যে সমস্ত গ্রাহকদের পুরনো রেশন কার্ড রয়েছে তাদের মুখে কিছুটা হলেও হাসি ফুটেছে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এছাড়া তিনি আরো বলেছেন,’ মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী সকলের মুখে অন্ন তুলে দিতে বলেছেন। আর আমরা তারই চেষ্টা করে যাচ্ছি। এই প্রক্রিয়া খুব তাড়াতাড়ি শেষ হয়ে যাবে এবং আর কয়েক দিনের মধ্যেই রেশন দেওয়া শুরু হয়ে যাবে ঐ সমস্ত গ্রাহকদের।