মানুষের মধ্যে ভয় থাকা দরকার, নতুন ট্রাফিক নিয়ম নিয়ে এক পাও নড়তে নারাজ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী..

এ কথা হয়তো সকলেই জানেন যে গত 1ই সেপ্টেম্বর থেকে দেশে নতুন ট্রাফিক নিয়ম লাগু করা হয়ে গেছে।আর এই নতুন ট্রাফিক নিয়ম এর দরুন জরিমানার পরিমাণ ও বদল করা হয়েছে বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে। এবার থেকে ট্রাফিক নিয়ম ভাঙলে দিতে হতে পারে বেশি পরিমাণে জরিমানা এমনকি জরিমানার পরিমাণ এতটাও হতে পারে যেখানে আপনার এক মাসের স্যালারি পর্যন্ত চলে যেতে পারে চালানে।আর এই নতুন ট্রাফিক নিয়মকে নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে হইচই।

তবে সরকার এ ক্ষেত্রে কোন প্রকার নমনীয়তা দেখাতে রাজি নয়। জি-মিডিয়াতে দেওয়া এক এক্সক্লুসিভ সাক্ষাৎকারে একথা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন কেন্দ্রীয় সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রী নীতিন গডকরি। এদিন তিনি বলেন মানুষের মধ্যে ভয় থাকা দরকার, যা আগে মানুষের মধ্যে ছিল না যার দরুন তারা ট্রাফিক নিয়ম কে খুব ভালোভাবে গ্রাহ্য করত না। তবে এবার থেকে জরিমানার পরিমাণ বাড়িয়ে দেওয়ায় আর ট্রাফিক নিয়মে এর বদল করার ফলে জনসাধারণ আগের তুলনায় বেশি সচেতনভাবে ট্রাফিক নিয়ম কে ফলো করবে।

ট্রাফিক আইন নিয়ে মানুষ সজাগ হলে তো ভালো কথা বলেন তিনি। তবে এখানেই শেষ নয় এই দিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আরো বলেন যে অনেক টাকা চালান দিতে হলে এতে অনেক মানুষের প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হবে। আর এই নতুন ট্রাফিক নিয়ম এর ফলে অনেক কম বয়সী ছেলেমেয়েরা বাঁচবে। এবার নতুন প্রযুক্তির মাধ্যমে চালান সোজা পৌঁছে যাচ্ছে আদালতে, সব বড় শহরে রয়েছে এমন প্রযুক্তির ব্যবস্থা। পরিকাঠামোকে আরও উন্নত করে তোলা হচ্ছে।

আগামী দিনে তৈরি করা হবে আরও সড়ক আরও সুবিধা পাবেন দেশের সাধারণ মানুষ। আর এখনও পর্যন্ত সব রাজ্যেই এই নতুন ট্রাফিক আইন মেনে নিয়েছে আর এই আইন খুব শীঘ্রই সব জায়গাতেই চালু হয়ে যাবে। তবে আরো একবার মনে করে দি গত 1ই সেপ্টেম্বর থেকে দেশজুড়ে লাগু করা হয়েছে নতুন আইন যার নাম মোটরযান সংশোধিত আইন।আর এই সংশোধিত আইনে ট্রাফিক নিয়ম ভাঙলে আগের তুলনায় অনেক বেশি পরিমাণে জরিমানা দিতে হচ্ছে।

উদাহরণস্বরূপ সিট বেল্ট লাগানো না থাকলে জরিমানা দিতে হবে 1000 টাকা যা আগে ছিল 100 টাকা।লালবাতি না মানলে আগে দিতে হতো 1000 টাকা তবে এখন সেখানে দিতে হবে পাঁচ হাজার টাকা। আগে মদ্যপান করে গাড়ি চালালে জরিমানার পরিমাণ ছিল 1000 টাকা যেখানে জরিমানার পরিমাণ বেড়ে করা হয়েছে 10 হাজার টাকা। আগে হেলমেট না পড়ে গাড়ি চালালে জরিমানা করা হতো 100 টাকা তবে এবার থেকে তা বাড়িয়ে করে দেওয়া হয়েছে 500 টাকা।শুধু তাই নয় গাড়ি চালাতে গিয়ে কোন নাবালক ধরা পড়লে কঠোর শাস্তির ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এই নতুন নিয়মে। নাবালক ধরা পড়লে অভিভাবক অথবা গাড়ির মালিককে 25 হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে। তবে শুধু তাই নয় একইসঙ্গে বাতিল করা হবে সেই গাড়ির রেজিস্ট্রেশন, সাথে 25 বছর পর্যন্ত লাইসেন্স দেওয়া হবে না ওই নাবালককে।

তবে এটা বলা বাহুল্য যে এবার থেকে জরিমানার পরিমাণ বাড়ার ফলে মানুষ আগের তুলনায় অনেক বেশি সচেতন হবে সমাজের ট্রাফিক আইনের প্রতি নিজের দায়িত্বশীলতা বুঝবে।

Related Articles

Back to top button