দেশে ভেঙ্গে পড়া অর্থনৈতিক ব্যবস্থাকে চাঙ্গা করতে দেশে 4 টি মেগা ফেস্টিভ্যালের আয়োজন করতে চলেছে সরকার।

একথা কারও জানতে বাকি নেই যে দেশ এখন আর্থিক মন্দার মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। তাই দেশের অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন শনিবার দিন এই অর্থনৈতিক মন্দার বাজার দূর করতে কয়েকটি বড় ঘোষণা করলেন।তিনি জানান ভারতবর্ষকে অর্থনৈতিক দিক থেকে শক্তিশালী করতে হলে অবশ্যই রপ্তানির পরিমাণ বৃদ্ধি করতে হবে। যে কোন দেশের আর্থিক শক্তি তার রপ্তানির ওপর নির্ভরশীল করে। এমনকি যে সময় ভারত সোনারপাখি হিসাবে পরিচিত ছিল সেই সময় ভারত থেকে রপ্তানির পরিমাণ ও ছিল বেশি।

আর আবারো সেই কাজে নেমে পড়লেন অর্থ মন্ত্রণালয়।দেশের অর্থনীতির গতিকে বাড়াবার জন্য অর্থমন্ত্রী দুটি ক্ষেত্রে জোর দিয়েছেন যার মধ্যে হলো সাশ্রয়ী মূল্যের আবাসন খাত ও রপ্তানি খাত। তিনি দেশের চারটি স্থানে যোগব্যায়াম, হস্তশিল্প, পর্যটন ও চামড়া খাতে বার্ষিক শপিং-এর মেগা ফেস্টিভ্যালের ঘোষণা করেছেন। শুধু তাই নয় এই দিন নির্মলা সীতারামন রপ্তানী কারীদের জন্য পি এস এল এর ও ঘোষণা করেন।

এই দিন রপ্তানিকারীদের 36 হাজার কোটি থেকে 68 হাজার কোটি রুপি পর্যন্ত অতিরিক্ত অর্থিক সাহায্য দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেন। তিনি রপ্তানি কারীদের পিএসএল বিধি আলোচনার কথাও বলেন। এছাড়া এদিন অর্থমন্ত্রী জানান এই বিষয়ক গাইডলাইন গুলির জন্য ভারতের রিজার্ভ ব্যাংকের সাথে আলোচনা করা হচ্ছে। অর্থমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী বাণিজ্যিক বিভাগের অধীনে একটি আন্তঃমন্ত্রণালয় গোষ্ঠী রপ্তানি খাতে সক্রিয়ভাবে তহবিল পর্যবেক্ষণ করবে।

আর এই উদ্যোগে বার্ষিক ব্যয় হবে 1700 কোটি টাকা।এটি সুদের হার বিশেষত ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসার জন্য রপ্তানীকারকদের পুরো ব্যয় হ্রাস করতে সহায়তা করবে। তবে শুধু তাই নয় এই দিন নির্মলা সীতারামন ফ্রী ট্রেনিং স্থাপন করার ঘোষণাও করেন বিদেশে রপ্তানি করার জন্য ভারত সরকারকে একটা ট্যাক্স প্রদান করে থাকে রপ্তানিকারকেরা। আর সরকার সেই রপ্তানি কে উৎসাহ প্রদান করতে শেষ ট্যাক্সের বোঝা কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইতিমধ্যে।