লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে জালিয়াতি রুখতে নতুন পদক্ষেপ গ্রহণ নবান্নের, এবার থেকে

আগেই অবশ্য লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পে জালিয়াতি রুখতে সতর্ক করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রকল্পের প্রয়োজনীয় ফর্ম যাতে নকল না হয় তার জন্য ইতিমধ্যেই বেশ কিছু ব্যবস্থা করেছে রাজ্য সরকার। ইতিমধ্যেই লক্ষীর ভান্ডার প্রসঙ্গে চালু হয়েছে হেল্পলাইন নম্বর। জেনে নিন কিভাবে বুঝতে পারবেন আপনার এই প্রকল্পের ফর্ম টি জাল কিনা।

১) প্রথমত আপনারা সকলেই জানেন আগামী ১৬ ই আগস্ট থেকে রাজ্যে বিভিন্ন জায়গায় শুরু হচ্ছে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প।

২) এই ক্যাম্পে বিশেষভাবে ব্যবস্থা করা হচ্ছে লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের জন্য। যেখানে একটি নির্দিষ্ট কাউন্টার থেকে ফর্ম তুলে তা পূরণ করে জমা দিতে হবে মহিলাদের।

৩) কোনভাবেই যাতে কোনো উপভোক্তা প্রতারিত না হন সেই জন্য লক্ষীর ভান্ডার ফ্রমটিতে কম্পিউটার জেনারেটেড ইউনিক নাম্বার থাকছে। সেই নাম্বার অবশ্য সরকারি আধিকারিকদের কাছেও থাকবে।

৪) আপনি যদি কলকাতার বাসিন্দা হয়ে থাকেন তাহলে সারাবছরই বানাতে পারবেন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড কলকাতায় স্থায়ী কেন্দ্র চালু করতে চলেছে KMC।

নবান্ন সূত্র থেকে ইতিমধ্যেই জানা গেছে বেশ কিছু জায়গা থেকে লক্ষীর ভান্ডার হেল্পলাইন নাম্বারে অভিযোগ আসছে যে টাকার বিনিময়ে ফ্রম বিক্রি চলছে। এই বিষয়ে অবশ্য প্রত্যেক জেলার জেলাশাসক দের সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যসচিব হরেকৃষ্ণ দ্বিবেদী। মুখ্যমন্ত্রী আগেই সতর্ক করে দিয়েছেন যে বাইরে থেকেই পাওয়া ফর্মে কোনো কাজেই লাগবে না। লক্ষীর ভান্ডার ফ্রম কেবল মাত্র পাওয়া যাবে দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকে সেখানে ফর্ম তুলে জমা দিলে তবেই গৃহীত হবে।

আসুন দেখে নেওয়া যাক লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত :-

২০২১ সালের বিধানসভা ভোটের ইস্তাহারের সময় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মহিলাদের আর্থিক সচ্ছলতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। যেখানে তিনি বলেছিলেন তিনি তৃতীয়বারের মতো ক্ষমতায় ফিরলে প্রতিমাসে পরিবারের মহিলাদের হাত খরচ দেবেন। সেই কথামতো তপশিলি জাতি ও উপজাতি মহিলাদের মাসিক ১০০০ টাকা, এবং জেনারেল কাস্ট মহিলাদের মাসিক ৫০০ টাকা করে ভাতা দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। এর সাথে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন ১ সেপ্টেম্বর থেকে মহিলাদের ব্যাংক একাউন্টে সেই ভাতা সরাসরি পৌঁছে যাবে। যার ফরম ফিলাপ শুরু হতে চলেছে ১৬ ই আগস্ট দুয়ারে সরকার ক্যাম্প থেকে।