রাজপরিবারের সদস্য গৌতম গাম্ভীরের স্ত্রী,‌ তার সৌন্দর্যের কাছে হার মানবে একাধিক বলিউড অভিনেত্রীরাও

বলিউড সুন্দরীদের সৌন্দর্যের কথা আলাদা করে বলার কিছু নেই। সারা বিশ্বেই এনাদের সৌন্দর্য নিয়ে চর্চা হয়ে থাকে। কিন্তু এমন কিছু কিছু নারী রয়েছেন, যাদের সৌন্দর্য নিমিষে হারিয়ে দিতে পারে অভিনেত্রীদের সৌন্দর্য্যকে। এমন একজন ব্যক্তি হলেন বিখ্যাত ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীরের স্ত্রী নাতাশা জৈন। নাতাশা এতটাই সুন্দরী যে, যে কোন অভিনেত্রীকে পিছনে ফেলে দেবার ক্ষমতা রাখেন। সোশ্যাল মিডিয়াতে নাতাশা মাঝে মাঝেই তাঁর নিজের এবং স্বামী গৌতম গম্ভীরের ছবি শেয়ার করেন। এ সমস্ত ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয় না।

ছবিগুলিতে মাঝে মাঝেই তাঁদের দুজনকে রোমান্টিক পোজ দিয়ে তুলতে দেখতে পাওয়া যায়। প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ২৯ অক্টোবর গৌতম গম্ভীর বিয়ে করেন নাতাশা জৈনকে। সে সমস্ত ছবি আমরা সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখেছি বহুবার। তবে আমরা অনেকেই হয়তো জানি না, গৌতম গম্ভীর স্ত্রী কোনো সাধারণ মহিলা নয়। তিনি দিল্লির একজন কোটিপতি ব্যবসায়ীর মেয়ে।

চলুন আমরা দেখিনি নাতাশার জীবনের কিছু অজানা কথা।নাতাশার সরল জীবন খুব সহজে মুগ্ধ করে ভক্তদের। আর ঠিক সেই কারণে নাতাশার প্রতি আকৃষ্ট হয়েছিলেন গৌতম গম্ভীর। তবে এতকিছুর পরেও নাতাশা নিজেকে লাইমলাইট থেকে দূরে রাখতে পছন্দ করেন। নাতাশা ব্যক্তিগত জীবনে একজন নৃত্যশিল্পী। তিনি নাচ করতে ভীষণভাবে পছন্দ করেন।

বিয়ে করার ক্ষেত্রে গৌতম গম্ভীর নাতাশার কাছে একটি শর্ত রেখেছিল এবং সেটি ছিল ২০১১ সালের বিশ্বকাপ। নাতাশার কাছে গৌতম গম্ভীর শর্ত রেখেছিলেন, বিশ্বকাপ হওয়ার পরেই তিনি বিয়ে করবেন। ২০১১ সালে শ্রীলংকার বিরুদ্ধে নেমেছিল বিশ্বকাপে ভারতীয় দল এবং সেখানেই প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের ট্রফি উঠেছিল গম্ভীরের হাতে। ২০১১ সালের ২৯ শে অক্টোবর নাতাশার সঙ্গে বিয়ে হয় গৌতম গম্ভীরের। পাঞ্জাবি এবং সনাতন ধর্মে বিয়ে হয়েছিল গৌতম এবং নাতাশার। গৌতম এবং নাতাশার দুটি কন্যা সন্তান। দুই সন্তান নাতাশার মত সুন্দরী হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, বরাবর নাতাশার ড্রেসিং সেন্স আকৃষ্ট করে আসছে ভক্তদের। নাতাশার পোস্ট করা ছবি দেখলেই বোঝা যায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ভালোবাসা এখনো কতখানি গভীর। কোটিপতি হলেও নাতাশার মধ্যে নেই কোন অহংকার, যা সহজে তাকে ভালবাসার পাত্র করে দেয় সকলের কাছে।