বিপিন রাওয়াতের প্রয়াণে শোকাহত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, আবেগপ্রবণ হয়ে বললেন একথা

তামিলনাড়ুতে বিমান দুর্ঘটনার কথা শুনতে পাওয়ার পর থেকেই দেশের সমস্ত বড় বড় কর্তারা পৌঁছে গেছেন ঘটনাস্থলে। বিপিন রাওয়াতের মৃত্যু এক কথায় ভারতের সামরিক ক্ষেত্রে একটি বড় ক্ষতি। ভারতের প্রথম সিডিএস বিপিন রাওয়াত এর মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকেই শোকের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে সকল জায়গায়। মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে হঠাৎ করে নীলগিরি পাহাড়ের চা-বাগানে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার ভেঙে পড়ে এবং অগ্নিদগ্ধ হয়ে যায়।

প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং খবর শোনার পর থেকেই পৌঁছে গেছেন জেনারেল বিপিন রাওয়াতের বাড়িতে। সেখানে সিডিএস অফিসারের পরিবারের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। সেখান থেকে ফেরার পর সংসদে পৌঁছান তিনি। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সকলকে জানান, সস্ত্রীক বিপিন রাওয়াত ১১ জন সেনা আমাদের মধ্যে আর নেই।

রাজনাথ সিং এই ঘটনা সম্পর্কে সমস্ত তথ্য জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে। গুরুত্বপূর্ণ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করে ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করেছেন। যান্ত্রিক গোলযোগ নাকি অন্য কোন সমস্যা তা খতিয়ে দেখার চেষ্টা করা হচ্ছে।

এই পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ একটি টুইট করে লিখেছেন, “আমাদের দেশের জন্য আজ একটি অভিশপ্ত দিন। আমরা আমাদের সিডিএসকে হারিয়েছি। তিনি সাহসী সৈনিক /দের মধ্যে অন্যতম ছিলেন। মাতৃভূমির সেবা যে সমস্ত সৈনিকরা নিষ্ঠার সাথে করেছেন, তিনি তাদের মধ্যে অন্যতম। এই ক্ষতি এক কথায় অপূরণীয়। আমরা ভীষণভাবে মর্মাহত।

ঘটনা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী টুইট করে লিখেছেন, “জেনারেল বিপিন রাওয়াত একজন নিষ্ঠাবান সৈনিক ছিলেন। একজন সত্যি কারের দেশ প্রেমিককে হারালাম আমরা। দেশের সুরক্ষার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান ছিল। প্রত্যেকটি সিদ্ধান্ত তিনি ভীষণ বিচক্ষণতার সঙ্গে নিতেন। এমন একজন সেনাবাহিনীর সেনাপ্রধান আমাদের ছেড়ে চলে যাওয়ায় আমরা ভীষণভাবে মর্মাহত”।