একটি নয় দুটি নয় রাজ্যে অসংখ্য সভা করবেন নরেন্দ্র মোদি, জেনে নিন আপনার এলাকায় কবে

বাংলায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতিটি রাজনৈতিক দল তাদের প্রচার শুরু করে দিয়েছে। তৃণমূলের পাশাপাশি বিজেপিরাও নানান জনসভা করছে। ভোটের দিনক্ষণ স্থির করার পরে বাংলায় গতকাল অর্থাৎ ১৪ মার্চ প্রথম বাংলা সফল হলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আসামে জনসভা করার পর খড়্গপুরে একটি রোড শো করেন এই মন্ত্রী। এই রোড শোতে অমিত শাহের পাশে দেখা যায় খড়্গপুরের বিজেপির প্রার্থী হিরণ চট্টোপাধ্যায় কে। এবার দেখে নেওয়া যাক ভোটে জেতার লক্ষ্য পূরণ করার জন্য গেরুয়া শিবির বাংলায় কোন কোন দিন সভা করছে।

 

খড়্গপুরের এই রোড শোতে ভিড় ছিল প্রচুর। মানুষের ভীড়ে তিল ঠাঁই নেই এই জনসভায়। এই জনসমুদ্রকে দেখে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন যে এইবার বিধানসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গে যে বিজেপি শিবির আসছে সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। ২০০ টি আসনে জয়লাভ করে গেরুয়া শিবির এবার বসবে বাংলার সিংহাসনে। আজ সোমবার ১৫ মার্চ ঝাড়গ্রামে অমিত শাহ একটি সভা করে তারপর তিনি বাঁকুড়ায় যাবেন সেখানে একটি সভা অনুষ্ঠিত হতে চলেছে।

ব্রিগেড জনসভার পর পশ্চিমবঙ্গে নরেন্দ্র মোদির আর কোনো সভা হয়নি বাংলায়। ১৮ মার্চ পুরুলিয়াতে সভা করে রাজ্যে নির্বাচনী প্রচারে নামবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এর পাশাপাশি ২০ মার্চ নরেন্দ্র মোদীর সভা হবে পশ্চিম মেদিনীপুরের খড়গপুরে। তারপর আবার ২২ মার্চ বাঁকুড়ায় সভা হবার কথা প্রধানমন্ত্রীর। ২৪ মার্চ কাঁথিতে সভা হবে। দ্বিতীয় দফা ভোটের দিন অর্থাৎ ১ এপ্রিল বাংলায় জোড়া সভা থাকবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। একটি সভা দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুরে, আরেকটি সভা অনুষ্ঠিত হবে হাওড়ার উলুবেড়িয়ায়।

এরপর ৩ এপ্রিল হুগলির আরামবাগে একটি সভা, ৬ এপ্রিল উত্তরবঙ্গের কোচবিহার আর দক্ষিণবঙ্গের সোনারপুরে জোড়া সভা রয়েছে মোদীর। ১২ এপ্রিল দক্ষিণবঙ্গের কল্যাণী ও বর্ধমানে জোড়া সভা থাকবে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। ১৪ এপ্রিল বারাসাত এবং কৃষ্ণনগরে জোড়া সভা, ১৭ এপ্রিল উত্তর দিনাজপুরের গঙ্গারামপুরে একটি সভা, ২০ এপ্রিল মুর্শিদাবাদে একটি সভা করবেন প্রধানমন্ত্রী। ২৩ এপ্রিল দক্ষিণ কলকাতায় সভা রয়েছে। এছাড়াও আরও কিছু সভা বাড়তে পারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।