গরিবদের কল্যাণে আরো একবার নজরদারি মোদি সরকারের, কৃষিঋণে ছাড়, ঘরে ঘরে জল ছাড়াও আরো বড় বড় প্রকল্পের সূচনা করতে চলেছে আগামীদিনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

দেশের দায়িত্বভার দ্বিতীয়বার সামলাবার পরই অর্থাৎ দ্বিতীয়বারের জন্য দেশের প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর আরও একবার গরিব মানুষের উপকার এই মন্ত্র’টি কে সাথে নিয়ে চলতে চাইছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাই তিনি প্রথম দিনেই মন্ত্রিসভার বৈঠকে সব চাষীদের জন্য ৬০০০ টাকার ভর্তুকির সাথে সাথে চাষী ও ছোটো ছোটো দোকানদারদের পেনশন প্রকল্পের আওতায় নিয়ে আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এবার মোদি সরকারের দ্বিতীয় লক্ষ্য হলো চাষীদের জন্য এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত বিনা সুদে ঋণের ব্যবস্থা করে দেওয়া। শুধু তাই নয় খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পের আওতায় এবার থেকে চাল,গম এর সঙ্গে ভর্তুকি দরে চিনি ও দেওয়া হবে। এমনকি কেন্দ্রীয় সরকারে শীর্ষ অধিকারীর জানিয়ে দিয়েছেন যে, প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট বলে দিয়েছেন দেশে মাত্র দুটি জাতি থাকবে। এক গরীব, আর ২ যারা গরীবের উপকার করবে। তিনি জানিয়ে দিয়েছেন গরিব মানুষের কল্যাণে যে সব প্রকল্প খুব সহজেই রূপায়ণ করা সম্ভব, সেই কাজগুলো প্রথমেই করে ফেলা হবে।চলুন দেখে নেওয়া যাক কি কি প্রকল্পের শুরু করতে চলেছেন পরবর্তীকালে নরেন্দ্র মোদি সরকার।

১) সময়ে শোধ করলে কিসান ক্রেডিট কার্ডে

২) ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণের সুদে পুরো ছাড়

৩)খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পে ৮০ কোটি মানুষকে পরিবার পিছু মাসে এক কেজি চিনি ১৩ টাকা দরে
৪)২০২২-এর মধ্যে সকলের জন্য পাকা বাড়ির কাজে গতি
৫) ‘নল সে জল’ প্রকল্পে ২০২৪-এর মধ্যে সব বাড়িতে নলবাহিত জল

এই খাদ্য সুরক্ষা প্রকল্পের দরুন এখন ৮০ কোটি মানুষ দের চাল গম দেওয়া হয়। আর এবার থেকে এই ৮০ কোটি মানুষদের জন্যই ১৩ টাকা দরে প্রতি পরিবার পিছু প্রতি মাসে ১ কেজি করে চিনিও দেওয়া হবে।
এখন যেসব চাষীদের কিষান ক্রেডিট কার্ড রয়েছে তারা তিন লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ গান।এমনকি পশুপালন, মাছ চাষের জন্য মেলে দু লক্ষ টাকার ঋণ। যার জন্য তাদের সুদ দিতে হয় ৭% তবে এক্ষেত্রে সময়ের মধ্যে ঋণ শোধ করে দিলে সুদে মিলে ভর্তুকি যেখানে ভর্তুকি দেওয়া হয় তিন শতকরা। তবে এবার থেকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ এর ভর্তুকির পুরো সুদটাই  দেবে সরকার। এমনকি জানিয়ে দেওয়া হয়েছে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ঋণ শোধ করে দিলে কোন প্রকার সুদ দিতে হবে না সেই চাষীদের। আপনাদের বলে রাখি দেশে প্রায় ১৪ কোটি ৫০ লক্ষ চাষীদের পরিবারের মধ্যে এখন প্রায় ৭ কোটি চাষীদের কাছে রয়েছে কিষান ক্রেডিট কার্ড।

তবে সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ব্যাংক গুলির সাথে সমালোচনা করে আরো বেশি কিষাণ ক্রেডিট কার্ড বিলি করতে চাইছেন তারা। এর আগে ২০১৫ তে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আবাস যোজনা সূচনা করেছিলেন যার লক্ষ্য ছিল একটাই ২০২২ এর মধ্যে সকল গরিবদের মাথায় ছাদের ব্যবস্থা করার। তবে তা এখনো লক্ষ্য থেকে ৫৪% শতকরা পিছিয়ে রয়েছে আর এই কাজকে গতি দেবার ব্যবস্থা করতে চলেছেন মোদির সরকার। তবে শুধু তাই নয় এবার ২০২৪ এর মধ্যে সকল বাড়িতে নল বাহিত পরিশুদ্ধ জল পৌঁছে দেবার জন্য “নল সে জল” প্রকল্পের উপর কার্যকর করতে চাইছেন তিনি।

Related Articles

Close