মনমোহন সিং এর আমলে ডুবে যাওয়া 83000 কোটি টাকা উদ্ধার করলো নরেন্দ্র মোদীর সরকার।

মনমোহন সিং এবং সোনিয়া গান্ধীর আমলে দেশের ডুবে যাওয়া টাকা ফিরিয়ে আনার চেষ্টা শুরু করেছে মোদী সরকার। দেশের সরকারি ব্যাংকের থেকে কোটি কোটি টাকা লুট করে নিয়ে যাওয়া ব্যবসায়ীদের আচ্ছে দিন প্রায় শেষ হয়ে এল। ভূষণ স্টিল থেকে 56 হাজার কোটি টাকা বাজেয়াপ্ত করার পর সরকারের ভয়ে প্রায় 3100 টি ছোট বড় মাঝারি কম্পানি ব্যাংকের টাকা ফিরিয়ে দিয়েছে। ব্যাংকে ফিরিয়ে দেওয়া টাকার পরিমান প্রায় 83,000 কোটি টাকা।

ভূষণ এর সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে টাটা কে বিক্রি করে সেই টাকা ব্যাংকে ফিরিয়ে দিয়েছে মোদি সরকার। যার পথ থেকে সরকারি ব্যাংক থেকে টাকা নেওয়া কোম্পানিগুলির অস্বস্তি বেড়ে যায়। প্রথমবার ক্ষমতায় আসার পর 2016 সালে মোদী সরকার IBC বিল পাশ করিয়েছিল। এই বিল এতটাই কার্যকরী হয়েছে যে সরকারি ব্যাংক থেকে লোন নেওয়া কোম্পানি বলি যারা এতদিন ঋণ শোধ করার কোন নামই করেনি, তারা ব্যাংকে এসে লাইন দিয়ে ঋণ শোধ করে গেছে।

যে সমস্ত কোম্পানি বলি ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে লোন শোধ করার নামই নিত না, তারা এখন সততার সঙ্গে ব্যাংকের লোন শোধ করে দিয়ে যাচ্ছে। IBC এর সংশোধনী অনুযায়ী, যদি কোন কোম্পানী গুলির উপর NCLT কার্যকর হয়ে যায় তবে ঐ সমস্ত কম্পানি গুলি নিলাম হয়ে যাওয়া কোম্পানির জন্য ডাক দিতে পারবে না। আগে বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্র করে ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে সেই টাকা ফেরত না দেওয়ার চেষ্টা করা হতো। কিন্তু বর্তমান সরকার ফাঁকি দেওয়ার সমস্ত দিক বন্ধ করে দিয়েছে।

যার ফলে সরকারি ব্যাংক গুলিকে ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে না। আপনারা হয়তো জানেন না যে 3100 টি কোম্পানি নিয়ে ঋণ নেওয়ার কথা আমরা বলেছি একটু আগে সেই সমস্ত কোম্পানিগুলি 2014 সালের আগে অর্থাৎ মনমোহন সিং এবং সোনিয়া গান্ধীর আমলে ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়েছিল। সেই সময়ে গান্ধী পরিবারের সাথৈ সামান্য একটু ঘনিষ্ঠতা থাকলেই ব্যাংক থেকে খুব সহজে লোন পেয়ে যেত কোম্পানিগুলি। কিন্তু এখন সমস্ত পদ্ধতি অবলম্বন করেই লোন দেওয়া হয় ব্যাংকে তরফ থেকে।


সরকারের ডুবে যাওয়া টাকাগুলি পুনরুদ্ধার করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির এই সমস্ত পদ্ধতি যে কতটা কার্যকর তা আমরা হাতেনাতে প্রমাণ পেয়ে যাচ্ছি।

Related Articles

Close