আমি টাকা নিয়েছি, নারদা প্রসঙ্গে বিস্ফোরক খুদ তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারের …

নারাদা কাণ্ড নিয়ে বিস্ফোরক কাকলি ঘোষ দস্তিদার । তিনি বলেছেন,”নারদকান্ডে” আমাকে টাকা নিতে দেখা গেছে এটা সত্যি। কারণ আমি টাকা নিয়েছি কিন্তু সেই টাকা চাঁদা হিসেবে নিয়েছি।”এ কথা সংবাদমাধ্যমকে স্পষ্টভাবে জানিয়ে দিয়েছেন সারদা কান্ডের অন্যতম মূল অভিযুক্ত তথা উত্তর 24 পরগনার বারাসাতের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার। শনিবার উত্তর 24 পরগনা বারাসাত হাসপাতালে ব্লাড ব্যাংকের নতুন ভবন উদ্বোধন করতে এসে এইদিন সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন বারাসাতের তৃণমূল সাংসদ।

সেই সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের মুখোমুখি হয়ে এই মন্তব্য করেন তিনি। তৃণমূল সাংসদের এমন বক্তব্যে পর চরম অস্বস্তির মুখে তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, ” নারদা-কাণ্ড টা পুরোটাই একটি নির্দিষ্ট দল এবং কিছু মানুষের বিরুদ্ধে করার চক্রান্ত। যখন আদালতের নির্দেশে এই ষড়যন্ত্র নিয়ে মামলা চলছে তখন এর উপরে আমি কিছু বলবো না। তবে এটি সত্যি যে আমি ম্যাথু স্যামুয়েলসের কাছ থেকে টাকা নিয়েছি এবং ওই ভিডিওটি ও সত্যি।

তবে ওই টাকা আমি নির্বাচনে লড়বার জন্য নিয়েছিলাম সেটির বিল রিসিভও এখনো পর্যন্ত আমার কাছে আছে। ম্যাথু স্যামুয়েলস এই বিলটি রিসিভ করেছেন তার প্রমাণ আমার কাছে আছে। এখানে তিনি শেষ করেননি তিনি সংবাদ মাধ্যমকে আরও জানিয়েছেন, নির্বাচনে লড়াই করার আগে সমস্ত দলেই চাঁদা নেয়। আর সেই ক্ষেত্রে আমিও সেটাই করেছি বলে দাবি করেন কাকলী ঘোষ দস্তিদার। এর সঙ্গে তিনি আরো জানান যে আমার কাছে সমস্ত প্রমান রয়েছে। যা আমি সমস্ত কিছু জমা দিয়ে দিয়েছি শুধু এই নয় আমি যে টাকা নিয়েছি তা নির্বাচন কমিশনকে জানিয়ে দিয়েছি।
তিনি দাবি করেন, ” আমরা সকলেই চাই এটার সঠিক তদন্ত হোক এবং এর পিছনে কারা জড়িত আছে তা সবার সামনে উঠে আসুক।

আর তাই আমি তদন্তের পূর্ণ সহযোগিতা করছি। এর থেকে বেশি আমি কিছু বলবো না।” এদিকে সারদা কাণ্ডের তদন্ত যখন ঠিক পথে এগোচ্ছে সেই সময় তৃণমূলের বারসাতের সাংসদ কাকলী ঘোষ দস্তিদার এরকম স্বীকারোক্তি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।