দেশে করোনা সংক্রমণ রুখতে শহরের পথে ঘুরবে করোনা টেস্টিং বাস, চলবে স্ক্রিনিংও..

করোনার প্রকোপে সারা বিশ্ব এখন আতঙ্কিত।ভারতীয় দিনে দিনে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। সমস্ত প্রচেষ্টার পরেও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখা যাচ্ছে না। আর এরই মাঝে করোনা টেস্টের রোগীর সংখ্যা সামাল দিতে গিয়ে নতুন উদ্যোগ নিল মহারাষ্ট্র সরকার। মুম্বাইয়ের রাস্তায় রাস্তায় ঘটবে মোবাইল করোনা টেস্টিং বাস। এমনটাই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে। শুক্রবার এর মোবাইল করোনা টেস্টিং বাসটির উদ্বোধন করেন মহারাষ্ট্রের স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে, পরিবেশমন্ত্রী আদিত্য ঠাকরে এবং মুম্বাই মিউনিসিপাল কর্পোরেশনের কমিশনার প্রবীণ পরদেশী।

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বাসটির উদ্বোধন হয়। বাসটির ভিতর থাকবে করোনা টেস্টিং ল্যাব। করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করার জন্য সমস্ত আধুনিক সরঞ্জাম থাকবে বাসটি ভিতরে। এছাড়াও এক্সরে করার সরঞ্জাম থাকছে। মুম্বাই মিউনিসিপাল কর্পোরেশনের এক আধিকারিক জানায়, দেশে প্রথমবার এই ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আশা করা যায় দেশে অন্যান্য শহরগুলিতেও এই ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হবে। এই বিশেষ ধরনের বাস মূলত বস্তি এলাকা গুলোতে ঘুরছে যেখানে আসিম্পটোম্যাটিক ক্যারিয়ারের উপস্থিতি সম্ভাবনা বেশি রয়েছে।
খবর পাওয়া গেছে, আইআইটি অ্যালুমনি কাউন্সিল ও কৃষ্ণা ডায়াগনস্টিকের যৌথ উদ্যোগে এই বাসটি চালু করা হয়েছে। এই ধরনের আরও বাস চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। রিপোর্ট অনুসারে দেশের মোট করোনাতে আক্রান্ত হয়েছেন 39 হাজার 778 জন মানুষ। এবং মৃত্যু হয়েছে মোট 1323 জনের। আর সম্পূর্ণভাবে সুস্থ হয়ে গেছেন বা ভারত থেকে নিজেদের দেশে ফিরে গেছেন এমন মানুষের সংখ্যা 10842 জন। সব মিলিয়ে সারাদেশে এখন এক্টিভ কেস রয়েছে 27 হাজার 709 টি। স্বাস্থ্য মন্ত্রক এমনটাই খবর পাওয়া গেছে।

সারাদেশের মধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা এবং মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে।ইতিমধ্যেই লকডাউন এই মাসের 17 তারিখ পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে  কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে। কেন্দ্র সরকারের তরফ  থেকে সারা দেশকে গ্রীন,রেড এবং অরেঞ্জ জোনে ভাগ করা হয়েছে। 17 তারিখ পর্যন্ত বন্ধ থাকছে ট্রেন এবং মেট্রো  এছাড়াও আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবাও বন্ধ থাকছে।  তবে বিশেষ ধরনের ট্রেন চালু করা হবে যারা বাইরের রাজ্যে আটকে পড়েছেন তাদের জন্য।  এবং কিভাবে টিকিট বিক্রি হবে সেই সম্পর্কে একটি নতুন গাইড লাইন জারি করবে রেল কর্তৃপক্ষ।এছাড়াও প্লাটফর্ম এবং ট্রেনের কীভাবে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স মেনটেন করা হবে সেই সম্পর্কেও নির্দেশিকা জারি করা হবে ভারতীয় রেলের তরফ থেকে।