দারুন সুখবর! এই করোনা মহামারীর মধ্যেও একাধিক ব্যাঙ্কের FD তে মিলছে ৭ পার্সেন্ট পর্যন্ত সুদ, তাই দেরি না করে

মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষেরা স্থায়ী আমানত বা ফিক্সড ডিপোজিটের উপরই ভরসা করে থাকেন। কারণ এই স্থায়ী আমানতের কোনো রিস্ক নেই আছে শুধু ভবিষ্যতের নিশ্চয়তা। তাই সংসার খরচ বাঁচিয়ে স্থায়ী আমানতে টাকা রাখতে মধ্যবিত্ত পরিবারের মানুষের জুড়ি মেলা দায়। কিন্তু এই সব কিছুতেই বাঁধ সাধলো ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রীর আসনে নরেন্দ্র মোদী বসার পর। নরেন্দ্র মোদী ভারতের প্রধানমন্ত্রী হবার পর কোপ পড়ল সাধারণ মানুষের হেঁসেল থেকে স্বয়ং ব্যাংক অ্যাকাউন্টে। করোনাকালে বিভিন্ন ব্যাংক পোস্ট অফিস তাদের সুদ কমিয়ে দিয়েছে। কিন্তু তা হলেও এখনো পর্যন্ত অনেক ছোট ছোট ব্যাংক গ্রাহক টানার জন্য বেশ ভালো পরিমাণে সুদ দিচ্ছে।

বড় বড় ব্যাঙ্কগুলিতে যেমন সুদের হার কমেছে তেমন অনেক ছোট ছোট ব্যাঙ্কগুলিতে আবার বেশ ভালো টাকার সুদের হার পাওয়া যায়। অনেক ব্যাংক আছে যারা এখনো স্থায়ী আমানতের উপর ৭% সুদ দিয়ে থাকে। যা মধ্যবিত্ত মানুষের কাছে আশার আলো যোগাবে। এবার এক ঝলকে সেই ব্যাংকের নামগুলি দেখে নেওয়া যাক…

জন স্মল ফাইনান্স ব্যাঙ্ক (Jana Small Finance Bank): ৭ শতাংশ প্রতি বছরে।

সুরদায়া স্মল ফাইনান্স ব্যাঙ্ক (Suradaya Small Fin Bank): প্রতি বছরের হিসাবে ৬.৭৫ শতাংশ।

ডিসিবি ব্যাঙ্ক (DCB Bank): ৬.৭০ শতাংশ বছরের হিসাবে।

ইয়েস ব্যাঙ্ক (Yes Bank): ৬.৫০ শতাংশ বছরের হিসাবে।

ইনডাসল্যান্ড ব্যাঙ্ক (Indusland Bank): ৬.৫ শতাংশ প্রতি বছরের হিসাবে।

এই লেখায় উপরের ব্যাঙ্কগুলির যে সুদের হার দেওয়া হল তা ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত বলবৎ থাকবে। ৩০ এপ্রিলের পর এই সুদের হারে পরিবর্তন আসলেও আসতে পারে।