একদিকে হুড়মুড়িয়ে বাড়ছে রিচার্জ প্ল্যানের দাম, অন্যদিকে নিউইয়র্কে ৭২৮ কোটি টাকার হোটেল কিনলেন মুকেশ আম্বানি

একটি স্মার্টফোন এবং প্রয়োজনীয় কানেকশন না থাকলে আমাদের জীবন একেবারেই বিকল। ভারতের নামিদামি টেলিকম সংস্থাগুলি মানুষের এই দুর্বল স্থান গুলি খুব ভালোভাবে বুঝে গেছেন। ৯৯টাকার রিচার্জ যদি কাল ১৯৯ টাকাও হয়ে যায় তাও আমরা রিচার্জ করবই। গত বছরের শেষের দিক থেকে টেলিকম সংস্থাগুলি এই ভাবেই মানুষের পকেট ফাঁকা করে দেবার জন্য বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। তেমনই একটি টেলিকম সংস্থা হল জিও এবং জিওর মালিক হলেন মুকেশ আম্বানি।

প্রায়শই মুকেশ আম্বানি খবরের শিরোনামে থাকেন তাঁর বিলাসবহুল জীবন যাত্রার জন্য। এবার মুকেশ আম্বানি আরো একবার শিরোনামে উঠে এসেছেন নিউ ইয়র্কে একটি বিলাসবহুল হোটেল ম্যান্ডারিন ওরিয়েন্টাল কিনে ফেলার জন্য। সম্প্রতি একটি প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, এই হোটেলটি কিনতে মুকেশ আম্বানি ব্যয় করেছেন প্রায় ৯.৮ কোটি ডলার, যা ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৭২৮ কোটি টাকা।

মুকেশ আম্বানির এই নতুন হোটেলটি বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত। হোটেলটি ইতিমধ্যেই AAA ফাইভ ডায়মন্ড হোটেল, ফোর্বস ফাইভ স্টার হোটেল এবং ফোর্বস ফাইভ স্টার স্পা সহ বেশ কয়েকটি পুরস্কার জিতে নিয়েছে। আজ আপনাদের জানাবো সেই হোটেলের কিছু খুঁটিনাটি তথ্য এবং আপনাদের দেখাবো হোটেলের অন্দরের বেশ কিছু চিত্র। হোটেলটির মধ্যে সমস্ত বিলাসবহুল সুযোগ-সুবিধা বর্তমান। হোটেলে রয়েছে বেশকিছু কক্ষ যা নদী মুখী এবং বেশ কিছু কক্ষ রয়েছে সেন্ট্রাল পার্ক এবং কলম্বাস সার্কেলের মুখোমুখি।

হোটেলটিতে পেন্ট হাউসের মত দুটি রুম রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে আর্ট মিউজিয়াম, স্টাডি অ্যান্ড মিডিয়া সেন্টার, সেফসাইজ কিচেন, লার্জ ফ্লোর টু সিলিং উইন্ডো, প্রিমিয়াম সাউন্ড সিস্টেমের মতো সুযোগ-সুবিধা। এছাড়াও রয়েছে বিলাসবহুল বার। এই হোটেলটি বানানো হয়েছিল ২০০৩ সালে। এই হোটেলটি অবস্থিত কলম্বাস সার্কেল নিউইয়র্ক হাডসন নদী, সেন্ট্রাল পার্ক এবং কলম্বাস সার্কেলের ঠিক পাশে।

রিলায়েন্সের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন,এই হোটেল সংক্রান্ত লেনদেন মার্চ মাসের শেষ হয়ে যাবে। উল্লেখ্য, গত বছরের এপ্রিল মাসে মুকেশ আম্বানি বৃটেনের প্রথম আইকনিক কান্ট্রি ক্লাব এবং গলফ রিসোর্ট স্টক পার্ক কিনেছিলেন ৫৯২ কোটি টাকা দিয়ে।