ফের চিনা ধনকুবেরকে পিছনে ফেলে এশিয়ার ধনীতম ব্যাক্তির তালিকায় নাম লেখালেন মুকেশ আম্বানি

হারানো গৌরব ফিরে পেলেন রিলায়েন্স অধিকর্তা  মুকেশ আম্বানি (Mukesh Ambani)। ব্লুমবার্গের তালিকায় এশিয়ার ধনীতম ব্যক্তি হিসেবে ফের মুকেশ আম্বানির নাম উঠে এল৷ পরিশ্রুত জলের কোম্পানির  মালিক চিন দেশের ধনী ব্যক্তি  ঝং শানশানকে পিছনে ফেলে এগিয়ে গেলেন আম্বানি। এই মুহূর্তে আম্বানির মোট সম্পত্তির পরিমাণ প্রায় ৮ হাজার ২০০ কোটি ডলার অর্থাৎ  ভারতীয় মুদ্রায় তার পরিমাণ ৬.৬২ লক্ষ কোটি টাকা। অন্যদিকে ঝংয়ের সম্পত্তির পরিমাণ সেখানে ৭ হাজার ৬০০ কোটি ডলার।

 

এর আগে টানা দু’বছর এশিয়ার ধনীতম ব্যক্তি ছিলেন মুকেশ আম্বানি। কিন্তু আচমকা তাঁকে সিংহাসনচ্যুত করেন আলিবাবার মালিক চিনা ধনকুবের জ্যাক মা। এরপর যদিও শীর্ষস্থান ফিরে পাননি মুকেশ আম্বানি। কিন্তু অবশেষে আবার রিলায়েন্স ইন্ড্রাস্ট্রিজের কর্ণধার বিশ্বের তালিকায় সেরা ধনী হলেন। ২০২০ সালের আগস্টেও চার নম্বরে ছিলেন মুকেশ আম্বানি৷  মাত্র কয়েক মাসে আরও কয়েক ধাপ নীচে নেমে যেতে হয়েছিল তাঁকে। রিলায়েন্সের (Reliance Industries Limited) শেয়ার দ্রুত পড়ছিল৷ তাই কমে যায় আম্বানিদের মোট সম্পত্তির পরিমাণ। এর ফলে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ধনীদের  সেরা দশ থেকে ছিটকে যেতে হয় তাঁকে।

মুকেশ আম্বানি

BSNL গ্রাহকদের জন্য সুখবর, ৯৯ টাকা থেকে শুরু পাঁচটি প্ল্যানের সুবিধা সহ বাড়নো হল মেয়াদকাল

২০২০ এর আগস্টে ২৪,৭১৩ কোটি টাকার বিনিময়ে ‘ফিউচার গ্রুপ’-এর খুচরো ও পাইকারি ব্যবসা এবং লজিস্টিক্স ও ওয়্যারহাউজিং ব্যবসা কিনে নিয়েছিল রিলায়েন্স। সেই সময় তাদের  শেয়ার দর ছিল সর্বোচ্চ। কিন্তু এরপর মার্কিন ই-কমার্স জায়ান্ট আমাজনের সঙ্গে রিলায়েন্সের ব্যবসায়িক সংঘাত এর ফলে  মুকেশ আম্বানির সংস্থার সঙ্গে ‘ফিউচার গ্রুপ’-এর চুক্তি নিয়েই বিবাদ শুরু হয়৷ ‘ফিউচার কুপনসে’ প্রায় ২০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে তারা।

‘ফিউচার গ্রুপ’ রিলায়েন্সকে সব সম্পত্তি বেচে দেওয়াতেই আপত্তি জানায় আমাজন। এই বিতর্ক ও প্রতিবাদের জেরে কমে যায় আম্বানির শেয়ার দর। এর ফলে  সেরা দশের তালিকা থেকে ছিটকে যান তিনি৷ এশিয়ার ধনীতম ব্যক্তির তকমাও হারান তিনি। কিন্তু ফের এশিয়ার সেরা ধনীদের মধ্যে সেরার সেরার শিরোপা মুকেশ আম্বানির  মাথায়।