দেশ গড়েছেন মোগল শাষকেরা, কিন্তু তাদেরই আজ বলিউড ভিলেন স্বরূপ তুলে ধরছে: ক্ষুব্ধ কবীর খান

ভারতীয় চলচ্চিত্রে মুঘল সম্রাটদের নিয়ে ছবি প্রায়ই হয়ে থাকে।তবে ট্রেন্ড হিসাবে এই মুঘল সম্রাটদের খলনায়ক হিসেবে দেখানো হয় হয়ে থাকে বরাবরই।পরিচালক কবীর খানের মতে এই ট্রেন্ড অত্যন্ত অস্বস্তিকর এবং সমস্যাযুক্ত।ভারতীয় চলচ্চিত্রে মুঘল সম্রাটদের নিয়ে যে সমস্ত ছবি গুলি করা হয়ে থাকে সেগুলো বেশির ভাগই ইতিহাস নির্ভর নয়। গল্পে অনেক পরিবর্তন থাকে এবং মুঘল সম্রাটদের ভিলেন হিসেবে দেখানো হয়ে থাকে ।এই পুরো বিষয়টাই পরিচালক খুবই ক্ষুব্ধ হয়েছে।

‘এক থা টাইগার’,’বাজরাঙ্গি ভাইজান’, ‘নিউইয়র্ক’ এর মত ছবির পরিচালক কবীর খানের মতে ভারতীয় সিনেমায় মুঘল সম্রাটদের প্রতি কোন শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয়ে থাকে না ।বরাবরই খলনায়ক হিসেবে তাদের দেখানো হয়ে থাকে। প্রকৃত অর্থে ভারত গড়েছিলেন এই মুঘলরাই। কিন্তু চলচ্চিত্রে তাদের অন্যরকম ভাবে দেখানো হয়ে থাকে । চিত্রনাট্যের অনেক পরিবর্তন ঘটানো হয় কবীর খান পুরো বিষয়টাকে খুবই অস্বস্তিকর বলে দাবি করেছেন । প্রচলিত কথার উপর ভিত্তি করে সাধারণত চলচ্চিত্র গঠন করা হয়ে থাকে।

একজন পরিচালক যখন সিনেমা তৈরি করবেন তখন ইতিহাসের উপর তাকে যথেষ্ট রিসার্চ করা উচিত। উপযুক্ত তথ্য উপর ভিত্তি করে চলচ্চিত্র গঠন করলে তবেই সে চলচ্চিত্র মান্যতা পায়। পরিচালকের কথায় প্রত্যেক মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি আলাদা হতেই পারে । যদি মুঘল শাসক ক্ষতিকারক হয়ে থাকে তাহলে চলচ্চিত্রে তাদের উপযুক্ত যুক্তি প্রমাণ দিয়ে দেখিয়ে দেয়া উচিত। যদি মুঘল শাসকরা ভারতের ঐতিহ্যের উপর সংস্কৃতির উপর ক্ষতিকারক হয়ে থাকে তাহলে তা প্রমাণ করা উচিত।

শুধুমাত্র টিআরপি বাড়ানোর জন্য সাফল্য লাভের জন্য ইতিহাসকে বিকৃত করা কখনোই সমর্থন যোগ্য নয়। যদি আমি কখনো কোনো চলচ্চিত্র করি তাহলে তা উপযুক্ত যুক্তি প্রমাণ দিয়ে গড়ে তুলব। যখন মুঘলদের হত্যাকারী বলা হবে তার পিছনে উপযুক্ত কারণ দেখাতে হবে। পদ্মাবত, তানাজি, পানিপথ সম্প্রতি বহু সিনেমায় মুঘলদের খাটো করে দেখানো হয়েছে পরিচালকের কোথায় আজকের দিনে মুঘলদের খাটো করে দেখানোটা যেন সহজ কাজ ।

বর্তমান চলচ্চিত্রে বাণিজ্যিক ক্ষেত্রে মুঘলদের বিকৃত করে দেখানোতে টিআরপি আছে ভালো। ফলে ক্রমাগত নেগেটিভ চরিত্রে দেখা যাচ্ছে মুঘল সম্রাটদের । তানাজি ছবিতে ইতিহাস বিকৃত হয়েছিল সে কথা অভিনেতা সাইফ আলি খান নিজেই স্বীকার করেছেন। সম্প্রতি মুক্তি পাচ্ছে মুঘল সম্রাট বাবর কে কেন্দ্র করে ছবি “দ্য এম্পায়ার”। তাছাড়া মুক্তির অপেক্ষায় কবীর খানের পরবর্তী ছবি ৮৩। করোনার জোরে আটকে এই দুটি ছবির মুক্তি। এখন দেখার বিষয় দর্শকদের কাছে ছবিগুলি কেমন সাড়া ফেলে।