ক্রিকেট ছাড়াও মহেন্দ্র সিং ধোনির রয়েছে আয়ের একাধিক উৎস , জেনে নিন কত সম্পত্তির মালিক তিনি

ভারতীয় দলের প্রাক্তন অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে আমরা সকলেই চিনি। সিনেমার মাধ্যমে আমরা জেনেছি কি ভীষণ পরিশ্রম করে তিনি আজ এই জায়গায় দাঁড়িয়ে রয়েছেন। যদিও বর্তমানে তিনি ক্রিকেট জগত থেকে অবসর নিয়েছেন কিন্তু আজও তিনি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে খেলে যাচ্ছেন। আজ প্রায় কোটি কোটি টাকার মালিক তিনি। চলুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক তাঁর জীবন এবং তাঁর সম্পত্তি সম্পর্কে বিস্তারিত।

মহেন্দ্র সিং ধোনি “ক্যাপ্টেন কুল” নামে পরিচিত আমাদের সকলের কাছে। অনেকেই তাঁকে ধোনি অথবা মাহি বলে ডাকেন। ক্রিকেট প্রেমীদের কাছে ধোনি একটি বিশেষ পরিচিত নাম। ভারতীয় ক্রিকেট প্রাক্তন দলের অধিনায়ক ১৯৮১ সালের ৭ জুলাই বিহারের রাঁচিতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। যদিও তাঁর পৈতৃক গ্রাম উত্তরাখণ্ডে কিন্তু যেহেতু তাঁর বাবা কাজের সূত্রে চলে আসেন রাঁচিতে, তাই তিনি জন্মসূত্রে রাঁচির বাসিন্দা।

মহেন্দ্র সিং ধোনির বাবা একটি ছোট কোম্পানিতে জোনাল ম্যানেজার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ধোনির এক বোন এবং এক ভাই রয়েছে। বোনের নাম জয়ন্তী গুপ্ত এবং ভাইয়ের নাম নরেন্দ্র সিং। ২০১০ সালে ৪ জুলাই দেরাদুনের মেয়ে সাক্ষীকে বিয়ে করেছিলেন তিনি।বর্তমানে তাঁর ৫ বছরের একটি কন্যা সন্তান যার নাম জিভা।

স্কুল চলাকালীন তিনি বেশিরভাগ খেলতেন ফুটবল এবং ব্যাডমিন্টন। সেই ভাবে কখনো তিনি ক্রিকেট খেলেন নি কিন্তু একবার ফুটবল কোচ তাঁকে স্থানীয় ক্রিকেট ক্লাবে ক্রিকেট খেলতে পাঠিয়েছিলেন সেই সময় তাঁর ক্রিকেট কিপিং দক্ষতা দেখে সকলে মুগ্ধ হয়ে গিয়েছিল। এই দক্ষতার কারণে তিনি ১৯৯৫ সাল থেকে ১৯৯৮ সাল পর্যন্ত কম্যান্ডো ক্রিকেট ক্লাবের নিয়মিত উইকেট-রক্ষক ছিলেন। দশম শ্রেণীর পর তিনি বুঝতে পারেন যে ক্রিকেটকে তিনি আলাদাভাবে ভালোবেসে ফেলেছেন। তখন একজন ক্রিকেটার হিসেবে নিজেকে প্রমাণিত করার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করতে থাকেন তিনি।

কঠোর পরিশ্রমের পর অবশেষে ২০০৭ সালে শচীন টেন্ডুলকারের পরামর্শে মহেন্দ্র সিং ধোনিকে ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক করা হয়েছিল। ২০০৮ সালে ক্রিকেট দুনিয়ায় অসামান্য অবদানের জন্য তাকে দেওয়া হয় খেলরত্ন পুরস্কার। এছাড়াও ২০০৯ সালে মহেন্দ্র সিং ধোনি পদ্মশ্রী পুরস্কার লাভ করেন। ২০১৮ সালে দেওয়া হয় পদ্মভূষণ পুরস্কার।


বর্তমানে দেরাদুনে তাঁর একটি বিলাসবহুল বাড়ি রয়েছে যার দাম প্রায় ১৮ কোটি টাকা। ২০১১ সালে এই বাড়িটি কিনেছিলেন তিনি। এছাড়াও রাঁচিতে একটি ৭ একর জমির ওপর খামারবাড়ি রয়েছে তার। এই খামারবাড়িতে পশুপালন চাষ এবং দুগ্ধ খামার পরিচালনা করেন তিনি।মহেন্দ্র সিং ধোনির কাছে রয়েছে বিলাসবহুল কিছু গাড়ি যার মধ্যে রয়েছে মার্সিডিজ, রেঞ্জ রোভার সহ আরো নানান কোম্পানির গাড়ি। ধোনির প্রিয় বাইক হলো কাওয়াসাকি নিনজা এবং কনফেডারেট হেলকেট। এগুলির মূল্য প্রায় কয়েক কোটি টাকা।

ক্রিকেট ছাড়াও ধোনির বেশিরভাগ আয় আসে বিজ্ঞাপন থেকে। তিনি কোলগেট, গোড্যাডি,ভারত মেট্রিমনি সহ আরও নানান বিজ্ঞাপনের সঙ্গে যুক্ত। এই বিজ্ঞাপন থেকে তার মোট আয় আসে ২০০ কোটি টাকা। এছাড়া প্রতি বছর চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে খেলার জন্য তিনি নেন ১৫ কোটি টাকা। সব মিলিয়ে তাঁর সম্পত্তি রয়েছে ৭৮৫ কোটি টাকা।

ধোনির অধিনায়কত্ব নিয়ে আলাদা করে কিছু বলার নেই। তিনি তাঁর ক্রিকেট জগতে অনবদ্য পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন সকলকে। ক্রিকেট ওয়ার্ল্ড কাপ জিতে ভারতকে আরো একবার বিশ্বের দরবারে মাথা উচু করে দাড় করিয়ে ছিলেন তিনি। ধোনির অধিনায়কত্বে শচীনের ওয়ার্ল্ড কাপ জেতার স্বপ্ন পূরণ হয়েছিল। প্রচন্ড কাজের চাপেও তিনি যেভাবে শান্ত হয়ে অধিনায়কত্ব করতেন তাই তাঁকে সহকর্মীরা এবং ভক্তরা ক্যাপ্টেন কুল বলে ডাকতেন। এছাড়াও অনেক সময় দক্ষিণ ভারতের মানুষটা থাকে ডাকতেন খালা বলে। খালা অর্থাৎ প্রধান। সৌরভ গাঙ্গুলীর পর মহেন্দ্র সিং ধোনিকেই ভারতীয় ক্রিকেট দলের একজন সুযোগ্য অধিনায়ক হিসেবে গণ্য করা হয়।