দেশনতুন খবরবিশেষ

ভিখারী পাকিস্থানের ব্যাবসার সর্বনাশ করে দিলো মোদী! লাইমস্টোন, সেনধা রপ্তানি বন্ধ হওয়ায় পাক ব্যাবসায়ীদের মধ্যে ভয়ঙ্কর প্যানিক।

ইতিমধ্যে পুলওয়ামা ঘটনাকে কেন্দ্র করে নানা জায়গায় মিছিল ও শহীদ দিবস এখনো পর্যন্ত পালন হয়ে চলেছে । শুধু তাই নয়, পুলওয়ামাতে ঘটে যাওয়া ঘটনা  ভারত বর্ষের প্রত্যেকটি সাধারণ মানুষকে মর্মান্তিক করে তুলেছে। অনেকেই হয়তো জানেন, গত কয়েকদিন  আগে পাকিস্তান থেকে MFN- এর মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার পর থেকে পাকিস্তান থেকে আগত জিনিস সামগ্রীর উপর ট্যাক্সের পরিমাণ ৩০০% করে দেওয়া হয়েছে। বলা ভুল হবে না যে, ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তের ফল গত ৩ দিনের মাথায় দেখা যাচ্ছে। ভারত সরকারের এই সিদ্ধান্তের পরিপেক্ষিতে পাকিস্তানের দুদিকের ব্যবসা পুরো চৌপাট হয়ে গেছে। আপনাদের জানিয়ে দিই পাকিস্তানি হল শুধুমাত্র এক এবং একমাত্র দেশ যেখানে সেনধার পাওয়া যায়।

সারা বিশ্বে শুধুমাত্র একমাত্র ভারতবর্ষে এই সেনধা পাকিস্তানের কাছ থেকে ক্রয় করত। আর ইতিমধ্যে মধু সরকারের নেওয়া ৩০০% অতিরিক্ত শুল্কের সিদ্ধান্ত এবার পাকিস্তানের ব্যবসার উপর ভারী পড়তে শুরু করেছে। শুধু সেনধায় নয়, এর সাথে লাইমস্টনে তৈরীর দিক থেকেও পাকিস্তান এক নম্বর স্থান দখল করে আছে। এবং তাই ভারতে ৪০ শতাংশের অধিক লাইমস্টোন পাকিস্তান থেকে ভারতে আসতো।  যা এখন শুল্কের পরিমাণ বাড়ার কারণে , ভারতে লাইমস্টোন আসা প্রায় বন্ধ হয়ে গেছে বললেই চলে। ভারত কেন্দ্রীয় সরকার অর্থাৎ প্রধানমন্ত্রী মাননীয় নরেন্দ্র মোদির উদ্যোগে পাকিস্তানের থেকে আমদানি বস্তুর উপর যে ট্যাক্স এর মান বাড়ানো হয়েছে তার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানের ব্যবসার পুরো সর্বনাশ ঘটে গেছে। শেষমেষ পাকিস্তানের লাইমস্টোন ও সেনধার ব্যবসায়ীরা পাকিস্তান সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে পর্যন্ত নেমে পড়েছে। মাত্র ৩ দিনে পাকিস্তানি ব্যবসায়ীরা পুরো সর্বস্বান্ত হয়ে পড়েছে।

এবার শুধু দেখার বিষয় পাকিস্তান সরকার এই ব্যবসায়ীদের জন্য কোন পদক্ষেপ নেবে। এই দুটি ব্যবসা ছাড়াও পাকিস্তান এখন তুলা ব্যবসা কে নিয়ে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। পাকিস্তান ব্যবসায়ীদের মধ্যে এখন প্যানিক এর সৃষ্টি হয়েছে। এখন তারা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে ভারতের সাথে শত্রুতা করে তাদের কত বড় ক্ষতি হয়েছে এমনকি তারা প্যানিক এর দরুন ইউএন সরকারের কাছে পর্যন্ত পৌঁছে গেছে। যেমন কি প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন পাকিস্তানের কাছে এই পুলওয়ামা জঙ্গি হামলা সঠিক বদলা নেবেন তারই শুরু হয়ে গেছে বললেই চলে এখন পাকিস্তানকে আর্থিক দিক থেকে সমস্যায় ফেলছে ভারত সরকার। এমন কি দরকার পড়লে ভারতীয় সেনাবাহিনীর দ্বারাও যুদ্ধে পরিস্থিতিতে মোকাবিলা করবে।

Related Articles

Back to top button