মোদির কূটনীতির কাছে ঝুঁকছে বিশ্ব! ডলারের তুলনায় দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে ভারতীয় মুদ্রা।

মাসখানেক আগেই ভারতীয় মুদ্রার দুর্বলতা নিয়ে বিরোধীরা কটু মন্তব্য করেছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কে। তবে কয়েক দিন ধরে বিরোধীরা নিস্তব্ধ হয়ে গেছে বললেই চলে। কারণ গতকিছু সপ্তাহ থেকে বিরোধীরা পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধি বা ভারতীয় মুদ্রা ভেঙে পড়া নিয়ে কোন প্রকার মন্তব্য করতে পারেনি।এর মূল কারণ হল তেলের দামের লাগামের সাথে সাথে ভারতীয় মুদ্রাও আন্তর্জাতিক বাজারে ও নিজের শিকড় মজবুত করতে শুরু করেছে।আপনাকে জানিয়ে রাখি শেয়ার বাজারে ভারতীয় মুদ্রা শুক্রবার দিন আমেরিকা ডলারের তুলনায় 48 পয়সা মজবুত হয়েছে যার দরুন ভারতীয় মুদ্রা এখন প্রতি ডোলারে 69.72 টাকায় পৌঁছে গেছে।
ব্যবসায়ীদের মত অনুযায়ী জানতে পারা গেছে মোদি সরকারের বিশেষ কিছু নীতি এবং ইরানের সাথে চুক্তির ব্যবহার করার এই পরিবর্তনটি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

অনেক সরকারি আধিকারিকদের মতে কাঁচা তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ার উপর বিদেশি মুদ্রার প্রভাব নষ্ট করার জন্য ভারতীয় মুদ্রাকে শক্তিশালী করাকে কাজে লেগেছে। ভারত সরকার মুদ্রা কে আরো মজবুত করার জন্য লাগাতার প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। গত সপ্তাহের বৃহস্পতি বার ডলারের তুলনায় ভারতীয় মুদ্রা 70.20 স্তরে টিকে ছিল। বিদেশি মুদ্রা বাজারে ভারতীয় মুদ্রা 69.72 স্তর অব্দি পৌঁছে ছিল। এক পরিসংখ্যান থেকে এটা জানতে পারা যায় বিদেশি তহবিল থেকে 157.72 কোটি বিদেশী অর্থ ভান্ডার নিকাশী করা হয়েছে অন্যদিকে দেশের ঘরেলু সংস্থা থেকে 240.60 কোটি মূল্যের শেয়ার ক্রয় করা হয়েছে।মোদি সরকার পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, ইরান ছাড়াও ব্যবসার ক্ষেত্রে জাপানে সাথে ভারতীয় মুদ্রার লেনদেন করবেন।


তবে এখানেই শেষ নয় এবার রুশ ও ইউ এ ই (UAE) সাথে ভারতীয় মুদ্রার লেনদেনের কথা নিয়ে আলোচনা করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মোদি সরকার চাইছে ভারতীয় মুদ্রা কে আন্তর্জাতিক স্তরে স্থাপিত করতে যার জন্যই তিনি আপ্রাণ চেষ্টা করে চলেছেন। ডলারের উপর নির্ভরশীলতা হয়ে পড়ায় ভারত বহুবারই নিজের মূল্য বৃদ্ধির ওপর নিয়ন্ত্রণ রাখতে পারে না। বিশেষজ্ঞদের মতে যদি ভারতীয় মুদ্রা কে নিয়ন্ত্রণে এনে শক্তিশালী করে যদি স্থাপিত করা যায় তবে বহু সমস্যা হাত থেকে মুক্তি পাবে আমাদের ভারত। এই ব্যাপারে আপনাদের কি মন্তব্য তা আমাদের অবশ্যই জানাবেন।