মোদী সরকারের বিশেষ যোজনা এখন মাত্র 7 টাকা করে জমালেই মাসে পেয়ে যাবেন 5000 টাকার পেনশন, তাই দেরি না করে…

করোনা আবহে দেশের সাধারণ মানুষকে স্বস্তি দেওয়ার জন্য মোদি সরকার নিয়ে একটি নতুন স্কিম। মোদি সরকারের এই নতুন স্কিমের দ্বারা প্রতিদিন মাত্র সাতটা করে জমা দিলে আপনি পেয়ে যেতে পারেন পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত। এটি শুনলে আপনার হয়তো একটু অবাক লাগবে কিন্তু এই ধরণেরই স্ক্রিম নিয়ে এলো কেন্দ্রীয় সরকার। কেন্দ্রের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এই নতুন স্কিমের ফলে এই পরিস্থিতিতে মধ্যবিত্ত সাধারণ মানুষদের মুখে হাসি ফুটবে। দরিদ্র মানুষদের কথা ভেবেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই অটল পেনশন যোজনা চালু করেছে।

এতে আপনি মাত্র 7 টাকার সঞ্চয়ে প্রতি মাসে 5000 টাকা পর্যন্ত পেনশন পেতে পারেন। আপনার প্রতিদিনের সঞ্চয় ভবিষ্যতের জন্য অনেকটা সুরক্ষিত হয়ে থাকবে। সাধারণত শ্রমিকদের ভবিষ্যতে সুরক্ষার কথা মাথায় রেখেই এই স্কিম আনা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে। এই স্কিমের দরুন 1000 টাকা থেকে শুরু করে পাঁচ হাজার টাকা পর্যন্ত প্রতি মাসে পেনশন পাবেন এই যোজনা অন্তর্গত গ্রাহকরা। তবে একথা জানিয়ে দিই যে, গ্রাহকের বয়স যখন 60 বছর হবে তখন থেকেই প্রতি মাসে পেনশন পাবে ওই গ্রাহক। যদি কোন কারনে পেনশন প্রাপ্য গ্রাহকের মৃত্যু হয়ে যায় তাহলে সেই পেনশন পাবেন তার স্বামী বা স্ত্রী।

যদি দুইজনারি এক্ষেত্রে মৃত্যু হয়ে যায় তাহলে যিনি নমিনি থাকবেন তিনি পুরো টাকা পাবেন। মোদি সরকার এই প্রকল্পের আওতায় যদি কোন গ্রাহক প্রতিদিন 10 টাকা করে সঞ্চয় করেন তাহলে 60 বছর পর ওই ব্যক্তি প্রতি মাসে পাঁচ হাজার টাকা করে অর্থাৎ বছরে 60 হাজার টাকা পেনশন পাবেন।2015 সাল থেকেই এই অটল পেনশন যোজনা চালু করা হয়। এরপর চলতি বছরের 1 লা জুলাই মাস থেকে এই যোজনা অন্তর্গত গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কাটা শুরু হয়। কিন্তু করোনা আবহের জন্য বর্তমানে এখন আর টাকা কাটা হচ্ছে না। 30 জুন পর্যন্ত টাকা কাটা হবে না বলে জানানো হয়েছিল সরকারের তরফ থেকে।

বর্তমানে নিয়ম অনুসারে এপ্রিল থেকে আগস্ট মাস পর্যন্ত এই যোজনায় অন্তর্গত যদি কোনো গ্রাহকের টাকা দেওয়া বাকি থাকে তাহলে আগামী সেপ্টেম্বর 30 তারিখের মধ্যে ওই গ্রাহকের সংশ্লিষ্ট ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা কেটে নেওয়া হবে। তবে আপনাদের জানিয়ে দিই, এর জন্য কোন পেনাল্টি চার্জ লাগবে না। 18 বছর বয়স থেকে এই যোজনায় অন্তর্গত হতে পারেন গ্রাহকেরা। 18 বছর বয়সে এই যোজনা অন্তর্গত হলে ওই ব্যক্তি প্রতি মাসে 210 টাকা করে অর্থাৎ প্রতিদিন 7 টাকা করে জমা দিলে 60 বছর পর ওই ব্যক্তি প্রতি মাসে 5000 টাকা করে পেনশন পাবেন।

সরকারি পরিসংখ্যান অনুসারে এই যোজনায় এখনো পর্যন্ত দুই কোটি মানুষ নাম নথিভুক্ত করেছে। এই যোজনায় নাম নথিভুক্ত করতে হলে সেই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ব্যাংকে বা পোস্ট অফিসে সেভিংস অ্যাকাউন্ট থাকা বাধ্যতামূলক। এবং একজন ব্যক্তির নামে একটি অ্যাকাউন্ট খোলা যাবে। এই স্কিমের আওতায় যারা থাকবেন তাদের ট্যাক্স এর ছাড়ের সুবিধা পাওয়া যাবে।