POK তে ভারতীয় সেনা প্রবেশ করানোর মাস্টার প্ল্যান তৈরি করে ফেলেছে ভারত, যা শুনে পাক মেডিয়া থেকে পাক সরকার পর্যন্ত কেঁপে উঠেছে।

বিশ্বের মধ্যে সকল দেশগুলি যাতে শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করতে পারে সে জন্য একটি অন্তঃরাষ্ট্রীয় আইন তৈরি করা হয়েছে সকল দেশের সম্মতিতে। আর এই অন্তরাষ্ট্রীয় আইন গুলি বিশ্বের প্রতিটি দেশই পালন করে। এই অন্তরাষ্ট্রীয় আইন গুলির মধ্যে এমন একটা আইন রয়েছে যেখানে আপনি আপনার দেশের সেনা কে যেকোন দেশে ঢুকাতে পারবেন না,নাহলে অন্য দেশ, সংযুক্ত রাষ্ট্র, সংযুক্ত রাষ্ট্র পরিষদ হস্তক্ষেপ করতে পারে। যেমন কি আপনারা অনেকেই জানেন জম্মু- কাশ্মীরের একটি বড় অংশ এখনও পাকিস্তানের কব্জায় রয়েছে এই অংশকে পাক অধিকৃত কাশ্মীর (POK) বলা হয়ে থাকে।

এই অংশটি মূলত কাশ্মীর দ্বিতীয় অংশ কিন্তু ভারতে নেহেরু প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন তার ভুলের জন্য এই অংশটি পাকিস্তান কব্জা করে নিয়েছে। আর নেহেরুর সময় থেকেই পাক অধিকৃত কাশ্মীর এখনো পর্যন্ত পাকিস্তানের কব্জাতেই আছে। পাকিস্তান সন্ত্রাসী জিহাদিদের সেনা পাঠিয়ে POK এর উপরে কব্জা করে নিয়েছিল। তবে পরবর্তীকালে পাক অধিকৃত কাশ্মীর কে পাকিস্তানের হাত থেকে ছাড়ানোর বদলে এই মামলাটিকে নেহেরু রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে নিয়ে চলে যায়।

সংযুক্ত রাষ্ট্রের থেকে এই মামলাটির সমাধান করার আবেদন করে নেহেরু। আর তারপর থেকে এখনো পর্যন্ত এই মামলাটি পড়ে রয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছেই। তবে এখন যদি ভারত সরকার তাদের সেনাবাহিনী পাঠিয়ে এই পাক অধিকৃত কাশ্মীর টি উদ্ধার করার চেষ্টা করে তাহলে সেটি হবে রাষ্ট্রসঙ্ঘের চুক্তির উলঙ্ঘন করা কারণ নেহেরুর ভুলের জন্য এই বিষয়টি এখনও পর্যন্ত রাষ্ট্রসঙ্ঘের কাছে পড়ে রয়েছে।তাই এখন (পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীর) pok তে আইনি রূপে ভারতীয় সেনাদের কিভাবে ঢোকানো যাবে যাতে সংযুক্ত ভারতের আইনও ভাঙবে না আর পাকিস্তানের সাহায্যের জন্য কেউ পাশে এসেও না দাঁড়ায়।আর এর পরিপ্রেক্ষিতে একটি প্ল্যান বানিয়েছেন সুব্রামানিয়াম স্বামি যার চর্চা চলছে পাকিস্তান মিডিয়া তে দিনরাত ধরে আর এই প্ল্যানিং একথা শুনে পাকিস্তান মিডিয়া থেকে শুরু করে পাক সরকার পর্যন্ত কেঁপে উঠেছে।

এই প্ল্যান অনুযায়ী ভারতের বর্তমান সরকার সবার আগে নেহেরু সংযুক্তরাষ্ট্রের কাছে যে আবেদন করেছিল সেটি ফেরত নিয়ে নেবে। আর এই আবেদনটি ফেরত নিয়ে নেওয়ার পরে জম্মু-কাশ্মীরের POK এর অংশটি পুনরায় সংযুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে খোলা হয়ে যাবে যেরকম আগে ছিল। আর তারপর যেমন কি আপনারা জানেন ই পাক অধিকৃত কাশ্মীর টি জম্মু-কাশ্মীরের অংশ অর্থাৎ সেটাকে কন্ট্রোল করার জন্য ভারত নিজেদের সেনাকে সেখানে পাঠাতে পারবে আর কোন প্রকার চুক্তি ও উলঙ্ঘন হবে না। শুধু তাই নয় তারপর সংযুক্ত রাষ্ট্রও কোন দখলদারি করতে পারবে না এ বিষয়ে।এই ভাবে আইনি রূপে pok তে থাকা পাকিস্তানি সেনাকে সেখান থেকে তাড়াতে হবে।

আর সেই কাজ ভারতীয় সেনা বাহিনীরা খুব সহজেই করতে নিতে পারবে।আর অন্য কোনো দেশও কোনো রকমের দখল দিতে পারবে না।এই ভাবেই ভারতীয় সেনা একটি আইনি যুদ্ধ লড়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীর কে আবার ভারতের সঙ্গে মিলিয়ে দেবে।