টানটান উত্তেজনা কাশ্মীরে!গভীর রাতে গৃহবন্দী করা হল ওমর আবদুল্লা, মেহবুবাকে- বন্ধ মোবাইল পরিষেবা ও স্কুলকলেজ..

কি ঘটতে চলেছে কাশ্মীরে তা এখনো ভালোভাবে পরিষ্কার হয়নি। তবে এটা পরিষ্কার হয়ে গেছে যে বড়োসড়ো কিছু একটা ঘটতে চলেছে জম্মু-কাশ্মীরে। কারণ এই তিন রাজ্যের প্রধান নেতা ওমর আব্দুল্লাহ, মেহেবুবা মুফতি ও সাজ্জাদ লোনকে রাতারাতি গৃহবন্দী করা হয়েছে। গতকাল রাত সাড়ে বারোটায় তাদের গৃহবন্দী করা হয়েছে। জম্মু কাশ্মীরের বিষয় নিয়ে সোমবার দিন অর্থাৎ আজ সকাল 9 টায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাসভবনে একটি কেন্দ্রীয় ক্যাবিনেট মিটিং এর আয়োজন করা হয়েছে।

আর এই মিটিংয়ে বড়োসড়ো কোন সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে বলে জানতে পারা যাচ্ছে। আর অন্যদিকে জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক বলেছেন এই বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত গোপনীয় ভাবে নেওয়া হবে না, যা হবে সংসদ এর মধ্যে আলোচনা করে নেওয়া হবে।তবে আপনাকে বলে দেওয়া যাক গত 24 ঘণ্টায় কী কী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে এই জম্বু কাশ্মীর কিরে আর কোন গুলিকে কার্যকর করা হয়েছে ইতিমধ্যেই।এই নিয়ম গুলির মধ্যে কয়েকটিকে জারি করা হয়েছে রবিবার দিন গভীর রাতেই।

গতকাল মধ্যরাতে শ্রীনগর ও জম্মু জারি করা হলো 144 ধারা, আর বন্ধ করে রাখা হয়েছে মোবাইল পরিষেবা কে। শ্রীনগর জেলার সমস্ত স্কুল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ইতিমধ্যেই। সোমবার জম্মু, কিস্তওয়ার, ডোডা, রেসাই ও উধমপুর জেলায় সমস্ত স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ।
গত ২৪ ঘণ্টায় কী কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কাশ্মীরকে ঘিরে, কোনগুলিই বা কার্যকর করা হয়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি জারি হয়েছে রবিবার গভীর রাতে। এছাড়া স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছে রাজ্যে কোথাও কোনো রকম মিটিং মিছিল করা যাবে।বিভিন্ন জায়গায় মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ আধাসামরিক বাহিনীর টহল। অন্যদিকে রবিবার দিন কাশ্মীরি নেতারা একত্র হয়ে কেন্দ্র কে হুমকি দিয়েছে কাশ্মিরের স্পেশাল সুযোগ-সুবিধা তুলে নিলে এর পরিণাম ভালো হবে না।

অন্যদিকে গৃহবন্দী হবার পরও মেহবুবা টুইট করে বলেন আমাদের মত যারা নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের এভাবে কেন গৃহবন্দী করা হল। ওমর আবদুল্লা টুইটে লিখেছেন, “আমার মনে হচ্ছে আমাকে গৃহবন্দি করা হচ্ছে্। যা ভাগ্যে আছে হবে, সকলের সঙ্গে আবার দেখা হবে। আল্লাহ আমাদের রক্ষা করুন।” যেমন কি আপনারা জানেন গত দুইদিন ধরে সাউথ ব্লককে চূড়ান্ত ব্যস্ততা রয়েছে এই কাশ্মীর কে নিয়ে।যার দরুন অমরনাথ যাত্রা বাতিল করে ফিরে আসতে বলা হয়েছে পূণ্যার্থীদের।করা হয়েছে অতিরিক্ত 25 হাজার সেনা মোতায়েন উপত্যকার বিভিন্ন অঞ্চলে।কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল ও র-এর প্রধানের সঙ্গে বৈঠক করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ।

আর এত কিছুর মধ্যে এবার কংগ্রেস নেতা শশী তারুর টুইট করে জানতে চান, কাশ্মীরে ঠিক হচ্ছেটা কী? কাশ্মীরি নেতারা কোনও অন্যায় না করা সত্ত্বেও তাঁদের বন্দি করা হচ্ছে কেন, প্রশ্ন তোলেন তারুর। ওমরদের সমর্থনে এগিয়ে এসেছেন সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরিও।

আর অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কট্টর সমর্থক বলে পরিচিত বলিউড অভিনেতা অনুপম খের কি এ বিষয় নিয়ে টুইট করতে দেখা যায় তিনি যে 2 টি করেছেন সেখানে লেখা রয়েছে কাশ্মীর সমস্যার সমাধান এর সূচনা হলো তাহলে।