শরীরকে ছুঁতে পারবে না কোন শত্রুর বুলেট, তৈরি করা হল “ভাবা কবচ” সেনা জওয়ানদের জন্য…

লাদাখে চীনের সাথে সীমান্ত নিয়ে বিবাদের মধ্যেই ভারতীয় সেনার জন্য তৈরি করা হল এক বিশেষ রক্ষা কবচ। এই জ্যাকেট পরীক্ষা করার জন্য প্যারা মিলিটারি ফোর্সকে দেওয়া হয়েছে। ভারতীয় জওয়ানদের নিরাপত্তার স্বার্থে তৈরি করা হয়েছে এই বুলেট প্রুফ জ্যাকেট। এই বুলেট প্রুফ জ্যাকেটকে এতটাই শক্তিশালী করা হয়েছে যে, AK 47 এর গুলিও এই জ্যাকেট ভেদ করতে পারবে না। বলে রাখি এই রক্ষাকবচ টিকে তৈরি করছে ভাবা অ্যাটমিক রিসার্চ সেন্টার (BARC), তাই এই কবচের নাম দেওয়া হয়েছে “ভাবা কবচ”(Bhabha Kavach)।

 

হায়দ্রাবাদের মিশ্র ধাতু নিগম লিমিটেড বা মিধানির চেয়ারম্যান আর ম্যানেজিং ডায়রেক্টর সঞ্জয় কুমার ঝাঁ বলেছেন যে, “এই বুলেট প্রুফ জ্যাকেটকে প্রচুর সংখ্যক বানানোর জন্য উন্নত টেকনোলজির ব্যবহার করা হচ্ছে। তারা জানিয়েছেন আমরা প্রচুর পরিমাণে এই জ্যাকেট বানানোর জন্য উন্নত টেকনোলজি ব্যবহার করছি।জানা গিয়েছে এই বুলেট প্রুফ জ্যাকেট আন্তর্জাতিক গুণমান বোঝায় রেখেই তৈরি করা হয়েছে। মিধানিতে তৈরি হওয়া এই বুলেট প্রুফ জ্যাকেটটিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রালয় ছাড়পত্র দিয়েছে। শত্রু পক্ষকে হারানোর পাশাপাশি সেনাদের দেওয়া হবে পর্যাপ্ত ব্যবস্থা।

শীতে ব্যবহৃত সরঞ্জাম এবং তাপ নিয়ন্ত্রক জিনিসের পাশাপাশি থাকবে আরো অনেক আধুনিক সরঞ্জাম। ফাইবার প্লাস্টিকের ইগলু, তাঁবু এবং বিশেষ তুষার বুটের জন্য বিপুলভাবে আবেদন করা হয়েছে। যাতে কোনোভাবেই শীতে ভারতীয় সেনার লড়াই করতে সমস্যা না হয়। এছাড়াও মিধানিতে একটি আর্মার্ড গাড়িও তৈরি হচ্ছে। জানা গিয়েছে যে, এই গাড়ি এতটাই শক্তিশালী হবে যে, সেটির টায়ারে গুলি লাগার পরও 100 কিমি চলতে পারবে। নভেম্বর, ডিসেম্বর মাসে লাদাখে তাপমাত্রা মাইনাস 50 ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে যাবে তাই বিশেষ ধরনের তাঁবু পাঠানো হয়েছে, তার মধ্য একসঙ্গে 8 থেকে 10 জন সেনা থাকতে পারবেন৷

উল্লেখ্য, এই মুহূর্তে লাদাখের প্যাংগং লেক এর দক্ষিণ এলাকায় ভারত এবং চীনের সেনাদের মধ্যে চলা বিবাদ দিন দিন বেড়েই চলেছে আর গত 7 সেপ্টেম্বর ওই এলাকায় হওয়া লড়াইয়ের পর আপাতত সীমান্তে শান্তি চুক্তি বোঝাই রয়েছে, তবে এই শান্তি কতদিনের জন্য বোঝায় থাকবে তা বলা মুশকিল। তাছাড়া ভারতীয় সেনারাও এখন আক্রমণাত্মক মনোভাব আপন করে একের পর এক গুরুত্বপূর্ণ জায়গা দখল করতে শুরু করে দিয়েছে আর এর ফলে চীন ক্রমশ ক্ষুব্দ রয়েছে।