Skip to content

CAT পরীক্ষায় ব্যর্থ, অবশেষে চাকরি ছেড়ে চা বিক্রি করে ‘MBA চাওয়ালা’ এখন কোটিপতি

স্বপ্ন ছিল দেশের বিখ্যাত বিসনেস স্কুলে পড়াশুনা করার৷ তারপর একটা মোটা মাইনের চাকরি৷ সুন্দর জীবন কে না চায়! কিন্তু বারবার তিনি CAT পরীক্ষা দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই পরীক্ষায় তিনি ব্যর্থ হয়েছিলেন। কিছুতেই সফল হতে পারছিলেন না। তাই ভালো চাকরি আর মোটা মাইনের আশা ছেড়ে চা বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছিল মধ্যপ্রদেশের প্রফুল বিল্লোরে। এরপর আহমেদাবাদে এমবিএ পড়ার নাম করে রাস্তার ধারে চা বিক্রি করতে শুরু করেন তিনি। দোকানের নাম দেন এমবিএ চা’ওলা। কিন্তু আজ তিনি চা বিক্রি করে সফল ব্যবসায়ী।

 

যেখানে পড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন আজ সেখানকার ছাত্রদের তিনি মনোবল বাড়ানোর জন্য ভালোভাবে জীবনে দাঁড় করানোর জন্য লেকচার দিতে যান।খাতায় কলমের ব্যবসা চালানোর পন্থা না পড়লেও গায়ে-গতরে পরিশ্রম করে নিজের ব্যবসা সফল করে তুলেছেন প্রফুল৷ 2014 থেকে পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। তিন তিনবার ফেল করেন। বেকারত্ব এবং হতাশা তাকে ঘিরে ধরে। শেষে এমবিএ পড়ার ইচ্ছে ছেড়ে দেন। নিজের রোজগার করার আশায় প্রথম উপার্জন শুরু করেন ম্যাকডোনাল্ডের আউটলেটে কাজ করে। কিন্তু এতে মনে শান্তি ছিল না।

 

এরপর বাবাকে মিথ্যা কথা বলে বাবার কাছ থেকে 8000 টাকা নিয়ে সেই টাকায় কেটলি কাপ এবং চা তৈরী সমস্ত কাঁচামাল সরঞ্জাম কিনে রাস্তায় রাস্তায় চা বিক্রি করা শুরু করেন।

প্রথম দিন তো গ্রাহক ছিলই না। পরের দিন দোকানে একটি মাছিও আসেনি। এর পর নিজে গ্রাহকদের কাছে চলে যান। তাদের থেকে অর্ডার নিয়ে পৌঁছে দিতেন চা। ইংরেজি বলতে পারতেন। দেখতেও সুন্দর, তাই চাওলার কদর করতে শুরু করল স্থানীয় বাসিন্দারা। কিন্তু পাশের দোকানের মালিকরা হুমকি দিতে থাকলো তাকে তুলে দেবে বলে।

শীতে উষ্ণ গরম জলেই সুস্থ থাকবে শরীর, নিয়মিত পান করলে মিলবে নিশ্চিত উপকারিতা

 

এরপর ক্রেতারাই তার খোঁজ করে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে তাকে খুঁজে আনল। ব্যবসা বাড়ানোর জন্য 50 হাজার টাকা আবার সে চাইলো বাবার কাছে। কিন্তু বাবা জানতেন তখনো ছেলে এমবিএ পড়ছে। তাই দোকানের নাম দিয়েছিলেন এমবিএ চাওলা। প্রথমে সবাই ভাবতেন তিনি এম বি এ পাস করে চা বিক্রি করছেন। কিন্তু পফুল ক্রেতাদের কাছে তার জীবনের ব্যর্থতার গল্প বললে জানা যায় তিনি এম বি এ পাশ করতে পারেন নি।

এখন তার অধীনে কুড়ি জন কর্মচারী রয়েছে। তিনি হার্ভার্ড বিজনেস স্কুল এর ব্যবসা চালানো এবং মনোবল ঠিক রাখার জন্য লেকচার দিতে যান। বহু বিখ্যাত মানুষকে তিনি চা খাইয়েছেন। জীবনে বড় হওয়ার ইচ্ছেটাই আসল।