কোন নারীকে বিবাহ করা অনুচিত? কী বলছেন চাণক্যের নীতি?

বিয়ে তো সবারই হয়, কারো আগে আর কারো পরে,কিন্তু তার মধ্যে সঠিক জীবন সাথী বাছাই করা হলো অনেক শক্ত কাজ। কিন্তু জীবন সাথী ভুল বাঁচলেই বিপদ , দেখা দেয় অশান্তি। সংসার কেরোসিন হয়ে ওঠে কেবলমাত্র ভুল বিবাহ-সিদ্ধান্তে। সমাজ সেই সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগে খানিক ভাবনা-চিন্তার অবকাশ রাখতে বলেছে বিশ্বের সর্বত্র। আমাদের দেশে ‘চাণক্য নীতি’ নামে পরিচিত নীতি আমাদের জানায় বিবাহ-সিদ্ধান্ত গ্রহণের আগে করণীয় ভাবার বিষয়ে।যে কোন নারীর সঙ্গে বিবাহ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়া উচিত হবে না, সে ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে পারি চাণক্য নীতি থেকে।
দেখা যাক হাজার বছর ধরে চলে আসা সেই বিধির কয়েক কথা।

• সুন্দরী হক বা নাই সুন্দরী হোক , এ নিয়ে কোনও মাথাব্যথা নেই চাণক্যর। তিনি অন্তরের কথা বলেছেন, অন্তরের সৌন্দর্যই চানক্যের মতে শেষ কথা।

• বিবাহ করার আগে জেনে নিন পাত্রীর পরিবারের খুঁটনাটি। পরিবারের পরিচয়ই মেয়েটির প্রকৃত পরিচয়।

• সুন্দরী নারী, কিন্তু স্বভাব ভালো না হলে , এমন পাত্রীকে বিয়ে না করাই সাব্যস্ত।

• কোনও পরিস্থিতিতেই মিথ্যাবাদী স্ত্রী কে বিবাহ করা উচিত নয়।

• হবু স্ত্রী কতটা বিশ্বাসযোগ্যা, তা জেনে নেওয়াটা প্রাথমিক কর্তব্য।তাই তার সাথে বিয়ের আগে সময় কাটান ।

• যে নারী গৃহকর্ম সম্পর্কে অজ্ঞ, তার বিবাহ না করাই ভালো,কারণ পরে এই বিষয়ে ঝগড়া হতে পারে ।

• নাস্তিক স্ত্রীলোককে কিছুতেই বিবাহ করবেন না।

Related Articles

Close