নাগরিকত্ব বিল নিয়ে খড়্গপুরের সভা থেকে কেন্দ্রকে হুংকার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের…

আজ সোমবার দিন লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পেশ করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। যেখানে সকল বিরোধী পক্ষ এই বিলের বিরোধিতা করতে লক্ষ্য করা গেলেন।ইন্ডিয়া মুসলিম লীগ কংগ্রেস ,মিম থেকে শুরু করে রাজ্যের তৃণমূল, কংগ্রেস পর্যন্ত এই বিলে তীব্র বিরোধিতা করলেন। অন্যদিকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় খড়্গপুরের সভায় এই নিয়ে বক্তব্য দিতে গিয়ে বললেন এনআরসি (NRC) আর সিএবি (CAB) নিয়ে ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই।

এর আগে এই ঠিক একইভাবে এনআরসি হবে না রাজ্যজুড়ে বলে আশ্বাস দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এরপর মুর্শিদাবাদের এক সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন কিছু লোক বদমাইশি করে এনআরসির নাম করে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করছে আপনাদের। একটা কথা মনে রাখবেন বাইরের আমদানি করা কোন নেতার কথা বিশ্বাস করবেন না, তাতে সে নেতা হিন্দুই হোক কিংবা মুসলমানই হোক না কেন। এ সাথেই তিনি আশ্বাস দেন আমরা আপনাদের পাশে আছি।

আর আমি কথা দিচ্ছি বাংলা এনআরসি হবে না তাই চিন্তা করার কোনো কারণ নেই। আমরা প্রত্যেকেই হলাম এই দেশের নাগরিক তাই একটা লোকও এখান থেকে বিতাড়িত করতে দেব না ওদের।এরই সাথে তিনি আরো বলেন, মনে রাখবেন যখন কোন জায়গায় আগুন লাগে সেখানে থেকে যেমন হিন্দু – মুসলিম, খৃষ্টান, তপশিলি, আদিবাসী কেউ রেহায় পায় না সে রকম দাঙ্গা লাগলো সবার ঘরে আগুন লাগে।এক্ষেত্রে তারা বলেছিলেন যে একটা হিন্দুর ও নাম যাবেনা তাহলে অসমে দেখুন কিভাবে 19 লক্ষ্যের মধ্যে 14 লক্ষ হিন্দু বাঙালির নাম বাদ করে দেওয়া হয়েছে।

এরই সাথে বাদ পড়েছে মুসলমান পাহাড়ী, রাজবংশী, বিহারীদের ও নাম। এটা বাংলা এখানে মানবিকতার জায়গা আছে, মানুষের জায়গা আছে, মা মাটি মানুষের জায়গা এটা, সভ্যতা ও সংস্কৃতির জায়গা এটা তাই ভয় পাওয়ার কিছু নেই এখানে।অন্যদিকে অমিত শাহ এর আগেই বলেছিলেন দেশজুড়ে করা হবে NRC ধর্মের ভিত্তিতে কোন জায়গা থাকবে না সকল নাগরিকের নামেই তালিকার মধ্যে থাকবে।সাথে সাথে এটাও বলেছিলেন যে নাগরিক পঞ্জি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল দুটি সম্পূর্ন আলাদা এই দুটিকে একসাথে গুলিয়ে ফেলবেন না।