বড় ঘোষণা: আবারো কল্পতরু মমতা, লক্ষ লক্ষ ছাত্র ছাত্রীর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে মাসে মাসে পাঠাবেন টাকা

মন জয় ফের কল্পতরু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। লক্ষীর ভান্ডার প্রকল্পের মধ্য দিয়ে গৃহলক্ষী দের মন জয় করেছে রাজ্য সরকার। আবার ছাত্রছাত্রীদের মন জিতেছেন স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে। তবে এবার তিনি এমন একটি প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেন, যা থেকে লাখো লাখো ছাত্র-ছাত্রী মাসে মাসে টাকা পাবে,সরাসরি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ঢুকবে সেই টাকা।

চলুন দেখে নেওয়া যাক কি সেই বৃত্তি, কারা পাবেন এবং কিভাবে আবেদন করতে হবে:-

স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপের অধীনে এই বৃত্তি দেবে রাজ্য সরকার।এই বছরের মাধ্যমিক, উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষায় কৃতি দের সম্বর্ধনা দেওয়ার অনুষ্ঠানে মমতা বলেন, ” এখন থেকে৬০ শতাংশ নম্বর পেলেই স্বামী বিবেকানন্দ স্কলারশিপ পাওয়া যাবে”। সুতরাং এত দিনের তুলনায় অনেক বেশি ছাত্র-ছাত্রীএখন থেকে সেই বৃত্তির সুযোগ পাবেন।

২০১৬ সালে এই প্রকল্প শুরু করেন মমতা। সংরক্ষণের আওতায় না থাকা সাধারণ শ্রেণীর পড়ুয়ারা এই বৃত্তি পান।যার পোশাকি নাম’ স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপ ‘। দশম দ্বাদশ এবং স্নাতক স্তরের যে কোন শাখার পড়ুয়ারা এই সুযোগ পান। মেডিকেল, ইঞ্জিনিয়ারিং এবং বিভিন্ন প্রযুক্তি ও পেশাগত কোর্সের ছাত্র-ছাত্রীরাও এই বৃত্তির আওতায় পড়েন। আগে যে নিয়ম ছিল তাতে সর্বশেষ পরীক্ষায়৭৫ শতাংশ নম্বর পেতে হতো।এখন সেটাই৬০ শতাংশ হয়ে গেল।

মূলত ছাত্র-ছাত্রীরা এই স্কলারশিপ পায় পড়াশোনার জন্য। এতে পড়ুয়ারা মাসিক এক থেকে আট হাজার টাকা পর্যন্ত পেতে পারেন।তারা যত টাকার আবেদন করেন, সেই ভিত্তিতে পারিবারিক আয় ও অন্য তথ্য খতিয়ে দেখে স্কলারশিপ দেয় রাজ্য সরকার। এক্ষেত্রে প্রাপ্ত নম্বর কমিয়ে আনাতে আরো বেশি সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী এই স্কলারশিপের সুবিধা পাবে।উল্লেখ্য এমফিল, পিএইচডি, মেডিকেল এবং ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ারাও এই স্কলারশিপ পেতে পারেন। বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এমনটাই ঘোষণা করেছেন। যা নিয়ম রয়েছে তাতে যাদের পরিবারের বার্ষিক আয় আড়াই লাখ টাকা পর্যন্ত তারাই এর জন্য আবেদন করতে পারেন।