লোকসভা ভোটে বিজেপির যোগ্য প্রার্থী নেই, মেনে নিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ

লোকসভা ভোটের আগে বিরোধী দলগুলি থেকে একের পর এক নেতা টেনে আনতে সক্ষম হয়েছে বিজেপি। তাদের বিজেপিতে টেনে এনে বিরোধী দল নেতাদের চমক দিয়েছে বিজেপি সরকার। বিরোধী দলের নেতা গুলি দল ছাড়াই তাদের অনেক ক্ষতি হয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে রাজনৈতিক মহলে। বিষ্ণুপুরে সাংসদ সৌমিত্র খাঁ, বোলপুরের সাংসদ অনুপম হাজরা বিজেপি দলে সদ্য নাম লিখিয়েছেন। বৃহস্পতিবার নয়া দিল্লিতে বিজেপির দলীয় পতাকা হাতে নিয়েছেন ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং। এখন সবারই মনে প্রশ্ন উঠছে যে, যখন বিরোধী দলগুলি থেকে নেতারা বিজেপিতে যোগদান করছে তাহলে, বিজেপি ভাঁড়াবে প্রার্থীর টান পড়ছে? এ নিয়ে অবশ্য শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপ ঘোষ স্বীকার করে নিয়েছেন যে তাদের দলে যোগ্য প্রার্থী নেই।

তাই অন্য দল থেকে লোক ভাঙ্গিয়ে গেরুয়া শিবিরে টানতে হচ্ছে। বাংলাতে 22 থেকে 23 টি আসন জেতার লক্ষ্য স্থির করে নিয়েছে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। অমিত শাহ অনেকদিন আগেই এই লক্ষ্যের কথা সবার সামনে বলেছেন। শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠকে দিলীপ ঘোষ আরো স্বীকার করেন যে, ” এটা ঠিক। যে জেতার মতো প্রার্থী আমাদের দলে সেরকম কেউ নেই। তবে যারা বাংলায় পরিবর্তন চান তারা আমাদের দলে যোগ দিচ্ছে। যারা মোদীর নেতৃত্বে ভারতের উন্নয়ন করতে চান তাদের জন্য দরজা সব সময় খোলা রয়েছে।” এর সঙ্গে দিলীপ ঘোষ এও দাবি করেন যে, প্রার্থী হওয়ার জন্য প্রায় 300 টির মতন আবেদন জমা পড়েছে তাদের কাছে। এছাড়া দলের মধ্যে আরো 50 জন রয়েছে।দিলীপ ঘোষ সাংবাদিক বৈঠকে এও জানান যে এখনো পর্যন্ত বিজেপি দল তাদের প্রার্থী ঘোষণা করতে পারেনি। দিলীপ ঘোষ এও জানান যে দু-একদিনের মধ্যে প্রার্থী ঘোষনা করে দেবে বিজেপি। দিলীপ ঘোষের দাবি, প্রার্থী তালিকা অনেক চমক থাকবে। এরপর তৃণমূলের প্রার্থী নুসরত এবং মিমি কে নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

তিনি বলেন, সুগত বসু কোথায় আর মিমি কোথায়! যদি মিমি জিতে যান তাহলে এরা এগিয়ে বাংলার প্রতিনিধিত্ব করবে। তৃণমূলে এটাই এখন বর্তমান অবস্থা।সূত্রের খবর, যারা বিজেপিতে নতুন যোগদান করছেন তাদেরকে টিকিট দেওয়ার ফলে বিজেপির মধ্যে অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। দিলীপ ঘোষ সাংবাদিক বৈঠকে জানান, বিধানসভা ভোটে বিজেপি 291 টি আসনের দাঁড়িয়েছিলেন। পঞ্চায়েত ভোটে পার্থীও হয়েছিলেন তারা।

Related Articles

Back to top button