কোন কোন শহরে জারি করা হতে পারে লকডাউন 5, আগামী রবিবার এই সময়ে ঘোষণা করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী..

দেশজুড়ে যে চতুর্থ দফার লকডাউন চলছে সেটি আগামী 31শে মে শেষ হতে চলেছে আর তারপরও কী আবারো এই লকডাউনের সময়সীমা কে বাড়ানো হবে সে নিয়ে একাধিক জল্পনা রয়েছে কারণ এখনো পর্যন্ত এই করোনা সংক্রমণকে রোখা সম্ভব হয়ে ওঠেনি ভারতে। তাছাড়া আগের তুলনায় এখন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে,তাই এরকম এক পরিস্থিতিতে আগামী দিনেও দেশজুড়ে ও কী জারি থাকবে লকডাউন, না তুলে দেওয়া হবে লকডাউন সে বিষয়ে উঠছে একাধিক প্রশ্ন।

এখন গোটা দেশবাসীর মনে লকডাউন কে ঘিরে একাধিক প্রশ্ন রয়েছে।তবে এই বিষয় নিয়ে এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেখানে জানতে পারা যাচ্ছে এবার এই লকডাউনের বিধি-নিষেধ কে নিয়ে নতুন বার্তা বেরিয়ে আসতে পারে। তবে এখন প্রশ্ন কবে এই বিষয় নিয়ে কবে নতুন বার্তা আসতে চলেছে, যেমনটা আমরা জানি আগামী রবিবার দিন সকাল 11 টার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর “মন কি বাত” অনুষ্ঠানটি সম্প্রচারিত হতে চলেছে গোটা দেশজুড়ে। অর্থাৎ একসাথে টিভি, বেতার, একাধিক জায়গায় এই অনুষ্ঠানটি সম্প্রচারিত করা হবে।

তাই প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আগামী দিনে এই লকডাউন কে বাড়ানো হবে কিনা কিংবা আগামী দিনে করোনা রূখতে কী কী বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হতে চলেছে তা জানিয়ে দেবেন। তবে বলে রাখি এক্ষেত্রে যদি এই লকডাউনের সময়সীমাকে আবারও বাড়ানো হয় তাহলে এর বিশেষ প্রভাব পড়তে পারে 11 টি শহরে এমনটাই জানানো হচ্ছে। প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী যা জানতে পারা যাচ্ছে সেখানে জানা যাচ্ছে আগামী দিনে লকডাউন 5 কে নিয়ে সরকারের তরফ থেকে বিশেষ 11 টি শহরকে চিহ্নিত করা হয়েছে।

আর এক্ষেত্রে কোন কোন শহরগুলিতে আগামী দিনে এই লকডাউন 5 জারি থাকতে পারে?তবে এক্ষেত্রে যে শহর গুলি নিয়ে সরকার চিন্তাভাবনা করতে পারে সে শহর গুলির নাম নিম্নরূপ দিল্লি, বেঙ্গালুরু, সুরত, কলকাতা, থানে, মুম্বাই, পুনে, ইন্দোর, আমদাবাদ, চেন্নাই, জয়পুর। তাই অনুমান করা হচ্ছে এই শহরগুলিকে নজরদারিতে রেখেই লকডাউন 5 এর ঘোষণা করা হতে পারে সরকারের তরফ থেকে।

অন্যদিকে গোটা দেশজুড়ে যদি করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বলা হয় গত 24 ঘণ্টায় তাহলে সে আক্রান্তের সংখ্যা একপ্রকার চিন্তায় ফেলেছে দেশের জনগণকে। যেখানে নতুন করে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে 6387 জন। দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা গত 24 ঘন্টায় হিসেব ধরে পার করেছে দেড় লাখ। এখন বর্তমানে ভারতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে 151780 জন। যাদের মধ্যে এই মুহূর্তে অ্যাক্টিভ রোগীর সংখ্যা রয়েছে 83004 জন, আর এক্ষেত্রে 64429 জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

Related Articles

Close