YAAS-এর বিপদ কাটলেও এখনো রয়েছে চাপ, আগামী দু-তিন দিন হালকা থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা একাধিক জেলাতে

কলকাতা থেকে ঘূর্ণিঝড় YAAS এর আশঙ্কার মেঘ আপাতত কেটে গিয়েছে তবে আগামী বেশ কয়েক ঘণ্টা এই ঘূর্ণিঝড়ের যে হারে কলকাতা সহ গাঙ্গেয় একাধিক উপত্যকা গুলিতে হালকা থেকে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। আর একথা খোদ আলিপুর আবহাওয়া দফতরের অধিকর্তা সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় সাংবাদিক বৈঠকে জানালেন। তবে যেমনটা আমরা জানি এই দুর্যোগ ঘূর্ণিঝড় এর জেরে বন্ধ রাখা হয়েছিল কলকাতার বিভিন্ন ফ্লাইওভার যাদের মধ্যে ছিল মা ফ্লাইওভার, এজেসি ফ্লাইওভার, চিংড়িঘাটা ফ্লাইওভার সহ একাধিক উড়ালপুল।

এই সিদ্ধান্ত এই কারণে নেওয়া হয়েছিল কলকাতা পুলিশের তরফ থেকে যাতে ঝড়ের সময় কোন প্রকার দুর্যোগ না ঘটতে পারে সেই কারণেই। তবে আশঙ্কার বাদল কেটে যাওয়ার ফলে সমস্ত রকম উড়ালপুল আপাতত খুলে দিয়েছে কলকাতা পুলিশ।

যদিও এই ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের ল্যান্ডফল হয়েছিল ওড়িশাতে তবু এর প্রথম ধাক্কাতেই রীতিমতো বেশ বড়সড় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বাংলা। এই ঘূর্ণিঝড় ইয়াস দুই মেদিনীপুর এবং উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ইতিমধ্যেই তাণ্ডব চালিয়ে গিয়েছে।এর জেরে ভেঙেছে মুড়িগঙ্গা ও বিদ্যাধরীর বাঁধ, রূপনারায়ণের জল উঠে এসেছে তমলুক শহর অবধি। তাছাড়া সমুদ্রের বাঁধ ভেঙে ক্ষতিগ্রস্ত দীঘা সহ একাধিক এলাকা।

রীতিমতো ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে কোশিয়ারি, ঝারগ্রাম, গোসাবা, নামখানা, পাথরপ্রতিমা, কাকদ্বীপ, সাগর সহ বিস্তীর্ণ এলাকা। এমন কী এই ইয়াসের জেরে জায়গায় জায়গায় ভেঙে পড়েছে গাছ, মৃত্যুর সংখ্যা কম হলেও মুখ্যমন্ত্রীর মতে এর জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে প্রায় ১ কোটি মানুষ। যদিও নিরাপদে সরিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে ১৫ লক্ষ মানুষকে।

তবে এখন আবহাওয়া দপ্তর এর তরফ থেকে যে পূর্ব আভাস মিলছে সেখানে জানতে পারা যাচ্ছে আপাতত ওড়িশা আর বঙ্গীয় উপকূলে শক্তিশালী YAAS ঘূর্ণি ঝড়ের দাপট চলছে তবে এই ঝড় ধীরে ধীরে উড়িষ্যা বালেশ্বর হয়ে উত্তর-পশ্চিম ঝাড়খণ্ডের দিকে এগিয়ে যেতে পারে। আর আগামী ৯ ঘণ্টার মধ্যে এই ঝড় তাঁর সমস্ত শক্তি খুইয়ে দেবে। শুধু তাই নয়, এর জেরে আজ এবং আগামীকাল বিভিন্ন উপকূলবর্তী এলাকা গুলিতে ঝড়ো হাওয়া বইবে, তার পাশাপাশি গাঙ্গেয় উপত্যকায় গুলিতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে।

এর পাশাপাশি আরও বেশ কয়েকটি জেলা রয়েছে যেগুলোতে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে আজ এবং আগামীকাল যাদের মধ্যে রয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর, পুরুলিয়া, ঝাড়খন্ড, বাঁকুড়া সহ বর্ধমানের নাম। আর দক্ষিণ 24 পরগনা জেলার কিছু অংশে বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, আগামীকাল বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে মালদা মুর্শিদাবাদ জেলাগুলি তেও।