LIC বাম্পার স্কীমে বাজিমাত! মাত্র একবার প্রিমিয়াম জমা করেই আজীবন মিলবে পেনশন

ভারতের অন্যতম বিশ্বস্ত সংস্থা লাইফ ইন্সুরেন্স কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া। প্রায়শই নতুন কিছু স্কিম নিয়ে লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি হাজির হন আমাদের সকলের সামনে। এবার একটি নন লিংক একক প্রিমিয়াম স্কিম আনতে চলেছে লাইফ ইন্সুরেন্স কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া। এই পরিকল্পনার অধীনে পলিসি ধারককে শুধুমাত্র প্রিমিয়াম দিতে হবে একবার। শুধুমাত্র একবার প্রিমিয়াম দিয়েই সারা জীবনের জন্য পেনশনের সুযোগ-সুবিধা পেতে পারবেন পলিসি হোল্ডারের।

এটি একটি তাৎক্ষণিক বার্ষিক পরিকল্পনা। এই পলিসি সম্পর্কে এলআইসি বলেছে, সমস্ত জীবনবীমা কারীদের জন্য এই প্ল্যানের অধীনে থাকার জন্য একই নিয়ম এবং শর্ত রাখা হয়েছে। এই প্ল্যানের অধীনে থাকতে গেলে পলিসি ধারককে দুটি উপলব্ধ বার্ষিক বিকল্পের মধ্যে একটিকে বেছে নিতে হবে। পলিসি শুরু হওয়ার তারিখ থেকে ৬ মাস পরেও আপনি ঋণ পেতে পারেন।

সরল পেনশন প্ল্যান বেছে নেওয়ার জন্য দুটি বিকল্প দেওয়া হয়েছে সকলকে। প্রথমটি হলো, ক্রয় মূল্যের ১০০% রিটার্ণসহ জীবন বার্ষিকী এবং দ্বিতীয়টি হলো, পেনশনভোগী ব্যক্তি যতদিন বেঁচে থাকবেন, ততদিন তিনি পেনশন পাবেন। তার মৃত্যুর পর বেস প্রিমিয়াম মনোনীত ব্যক্তিকে ফেরত দিয়ে দেওয়া হবে।

দ্বিতীয় বিকল্পটি বেছে নিলে স্বামী-স্ত্রী উভয়ই যুক্ত থাকতে পারবেন। এতে জীবনসঙ্গী যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন পেনশন পাবেন দুজনেই। প্রথমটিতে পেনশনভোগী মারা যাবার পরেও তার স্ত্রীর অথবা স্বামীর পেনশন পাবেন কিন্তু দ্বিতীয় দিতে পেনশনভোগী পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলে মনোনীত ব্যক্তিকে মূল মূল্য ফেরত দিয়ে দেওয়া হয়, অর্থাৎ মৃতুর পরে আর দেওয়া হয় না পেনশন।

এই পলিসি দুটিতে আপনি পলিসি কেনার সঙ্গে পেনশন শুরু হয়ে যাবে। পেনশনভোগীদের কাছে বিভিন্ন বিকল্প থাকবে পেনশন নেওয়ার ক্ষেত্রে। এই স্কিমটি আপনি অনলাইন অথবা অফলাইন দুভাবেই কিনতে পারেন। সর্বনিম্ন প্রিমিয়াম বার্ষিক ১২,০০০ টাকা। সর্বোচ্চ মূল্যের কোন সীমা নেই। ৪০ থেকে ৮০ বছর বয়সী মানুষ এই স্কিম কিনতে পারেন। মাসিক পেনশনিয়ে সুবিধা পেতে গেলে আপনাকে অন্তত ১ হাজার টাকা বিনিয়োগ করতেই হবে। ত্রয়ীমাসিক পেনশনের জন্য মিনিমাম ৩ হাজার টাকা বিনিয়োগ করতে হবে আপনাকে।