চীন থেকে ব্যবসা গুটিয়ে, LAVA কোম্পানি ভারতে বিনিয়োগ করতে চলেছে 800 কোটি টাকা..

চীন থেকে নিজের ব্যবসা গুটিয়ে এবার ভারতে নিজের ব্যবসা শুরু করতে চলেছে লাভা ইন্টারন্যাশনাল। এই মোবাইল তৈরি কারী সংস্থা জানিয়েছে তারা তাদের উন্নতির জন্য আগামী পাঁচ বছরে প্রায় 800 কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে দেশে। দেশীয় এই সংস্থাটির বিভিন্ন দেশেই শাখা রয়েছে আর সেই শাখারই একটি অংশ ছিল চীনেও তবে এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আত্মনির্ভর ভারত অভিযানের কথা ঘোষণা করার পর থেকে এই সংস্থা চীন থেকে নিজেদের ব্যবসা কে গোটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার পরিবর্তে তারা ভারতে তাদের ব্যবসা কে স্থানান্তরিত করতে চাইছে।

এই মোবাইল প্রস্তুতকারী সংস্থার ও কোম্পানির চেয়ারম্যান ম্যানেজিং ডিরেক্টর হরিওম রায় জানান ডিজাইনের জন্য চীনে আমাদের প্রায় 600 থেকে সাড়ে 600 কর্মী রয়েছে আর আমরা এবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ডিজাইনিং এর কাজটি ভারতের স্থানান্তরিত করা হবে। এতদিন পর্যন্ত চীন থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করা হত মোবাইল তবে এবার সেটা করা হবে ভারত থেকেই। এই মুহূর্তে করোনার জেরে বড়ো ধাক্কা খেয়েছে দেশের অর্থনীতি আর এরকম পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের তরফ থেকে দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের ওপর জোর দিতে বলা হয়েছে।

এমন কী বিদেশী পণ্য ভুলে দেশি ব্র্যান্ড ব্যবহার করার জন্য নাগরিকদের উৎসাহ জানিয়েছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তাই এরকম এক পরিস্থিতিতে নিজেদের ব্যবসা চীন থেকে সরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে লাভা। আর এই কোম্পানির এখন ইচ্ছে রয়েছে পুরো কাজটাই করা হবে ভারত থেকে। আর এর জন্য তাঁরা মোটা অংকের রাশিও বিনিয়োগ করতে রাজি রয়েছে। লাভার ম্যানেজিং ডিরেক্টর হরিওম রায় জানান, ইচ্ছা ছিল চীনের মোবাইল রপ্তানি করবো, ভারতীয় কোম্পানি কিন্তু ইতিমধ্যে মোবাইল চার্জার রপ্তানি করে তবে এখন ঠিক করা হয়েছে চীনে বর্তমানে যে কাজগুলি হয়ে থাকে সেগুলি আগামী দিনে ভারতে করা হবে।

যার দরুন আগামী পাঁচ বছরের জন্য বিনিয়োগ করা হবে 800 কোটি টাকার।যদিও এর আগে এপ্রিলে স্কিমের কথা জানানো হয়েছিল কেন্দ্রের তরফ থেকে যেখানে বলা হয়েছিল স্থানীয় ইলেকট্রনিক্স তৈরি কারী সংস্থার উন্নতি মোট অঙ্কের অর্থ লগ্নি করা হবে সেইসঙ্গে 2025 সালের মধ্যে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে প্রায় কুড়ি লক্ষ মানুষের চাকরির ব্যবস্থা করা হবে এ ক্ষেত্রে।শুধু তাই নয় যে স্কিমের কথা উল্লেখ করা হয়েছিল সেখানে একথাও বলা হয়েছিল যদি ইলেক্ট্রনিক প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি বিক্রি বাড়ে তাহলে মিলবে সেক্ষেত্রে ইনসেনটিভ, অর্থাৎ এক্ষেত্রে যদি ভারতে তারা তাদের ব্যবসা স্থানান্তরিত করে তাহলে কোম্পানির সুবিধা হবে একথা স্বয়ং স্বীকার করেছেন চেয়ারম্যান।

Related Articles

Back to top button