এবার মোদী সরকারের তরফ থেকে নিজের জন্মদিনে সবচেয়ে বড় উপহার পেতে চলেছেন লতা মঙ্গেসকার

একজন ভারতীয় হিসাবে লতামঙ্গেসকার চেনেন না এরকম ভারতীয় প্রায় নেই বললেই চলে। ভারতের নাইটিঙ্গেল হিসাবে পরিচিত লতামঙ্গেসকারের চর্চা শুধু ভারতের মধ্যেই সীমিত নয় ভারতের বাইরে রয়েছে তার তুমুল চর্চা। সম্প্রতি কিছুদিন আগে তার গলারই নকল করে রানু মন্ডল নামক এক মহিলা “এক প্যার কা নাগমা হ্যায়”- গানটিকে গেয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় রাতারাতি হয়ে ওঠেন সেলিব্রিটি। তবে এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেটি হল লতামঙ্গেসকারের জন্মদিনের প্রাক্কালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ গৌতম রাজ্য পাঠের সংরক্ষণাগার থেকে তার বোন ঊষা মঙ্গেশকর এর চিত্রের একটি সংকলন প্রকাশ করেন।

তবে আপনাদের বলে রাখি আজকে লতা মঙ্গেসকারের 90 তম জন্মদিন, আজকের এই দিনে সরকার উনাকে বড় উপাধিতে ভূষিত করতে চলেছেন এমনটাই সূত্রের খবর। ভারতের নাইটিঙ্গেল লতামঙ্গেসকার আজ 28 শে সেপ্টেম্বর 2019 এ 90 বছর বয়সী হবেন। আর তার এই জন্মদিন উপলক্ষে মোদি সরকার উনাকে “ডটার অব দ্য নেশন” তথা “জাতির কন্যা” উপাধিতে ভূষিত করতে চলেছেন। লতামঙ্গেসকার হলেন একজন বলিউড গায়িকা যার কন্ঠস্বরের সবাই ভক্ত।

যদিও এখন তিনি বয়সের কারণেই বলিউড থেকে দূরে রয়েছেন তবে তার গাওয়া গানগুলি আজকেও শোনা যায়। এমনকি তার গাওয়া গানগুলি এখনকার যুগের এর গানগুলি কেও টক্কর দিয়ে থাকে। উনার পুরনো গানের সামনে আজকের হিট গান গুলি ও ছোট হয়ে যায়। তাঁর দীর্ঘ বলিউড কেরিয়ারে তিনি ‘লাগা গা গাল’ এবং ‘এক প্যার কা নাগমা হ্যায়’ সহ অনেক চিরসবুজ গান দিয়েছেন। গত চার দশকে সংগীত জগতে ওনার অবদানের জন্য এবার লতামঙ্গেসকার কে দেশের কন্যা উপাধি প্রদান করা হতে চলেছে।

এক বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে লতামঙ্গেসকার কে প্রদান করা হবে এই উপাধি। সংগীত জগতে উনার অবদান ব্যাপক এমনকি ওনাকে এই উপাধি দ্বারা সম্মানিত করা হলে সংগীতজগতকে প্রণাম জানানো হবে সরকারের তরফ থেকে। তাই বর্তমানে মোদি সরকার উনাকে দেশের কন্যা হিসাবে ভূষিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। আজকের এই শুভ দিনে উনার 90 তম জন্মদিনে এই উপাধি ভূষিত করার কথা রয়েছে। আর গতকাল থেকেই বিশ্বের নানা প্রান্ত থেকে লতামঙ্গেসকারের জন্মদিনে অগ্রিম শুভেচ্ছা পাঠানো শুরু হয়ে গেছে। ভারতের সংগীতজগতে উনি দিদি হিসাবে পরিচিত তবে অনেকেই উনাকে মা বলে সম্মানিত করেন সংগীত জগতে। এমনকি লতামঙ্গেসকারের সাথে কাজ করা ব্যক্তিরাও নিজেকে সৌভাগ্যবান বলে মনে করেন। কারণ ওনার মত এক প্রতিভাবান ব্যক্তির জন্ম বিশ্বের খুব কম হয় তাই সরকারের তরফ থেকে এবার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তাকে উপাধি দিয়ে প্রশংসনীয় কাজ করার।

Related Articles

Close