শেষ মুহূর্তে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল যোগাযোগ, বিক্রমের খোঁজে মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছেন ইসরোর বিজ্ঞানীরা

মধ্যরাতে চাঁদের মাটিতে ভারতের বিক্রম কে দেখতে সকল দেশবাসীর চোখ মেলে চেয়ে ছিল এমন কী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও হাজির ছিলেন স্বয়ং।কিন্তু শেষ মুহূর্তে বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ইসরোর মিশন কন্ট্রোলের।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারে নি ইসরোর বিজ্ঞানীরা। পরিকল্পনা মোতাবিক শনিবার দিন রাত 1:38 থেকে শুরু করা হয় বিক্রমের অবতরণের প্রক্রিয়া। যানের গতিবেগকে সেকেন্ডে 1.8 কিলোমিটার থেকে কমিয়ে আনা শুরু করা হয় শূন্যে। সেই লক্ষ্যে শুরু করা হয় হার্ড বেকিং তবে হার্ড ব্রেকিং পর্বটি ভালো ভাবে সম্পন্ন হলেও তার পরবর্তী পর্যায়ে অর্থাৎ ফাইন ব্রেকিং পর্ব শুরু হতেই দেখা যায় বিপর্যয়।

আর সেই পর্যায়ে কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই ইসরোর কন্ট্রোল সেন্টারের সঙ্গে যাবতীয় সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় যানটির। যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হতেই উদ্বেগ ছড়ায় সেখানে হাজির বিজ্ঞানী ও ইসরোর কর্মীদের মধ্যে।আর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে এই পরিস্থিতির গুরুত্ব বোঝাতে ছুটে যান ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন।গতকাল ইসরোর চেয়ারম্যান রাত 2 টা 30 মিনিটে কে সিবন জানান চন্দ্রপৃষ্ঠ থেকে 1.2 কিলোমিটার পর্যন্ত স্বাভাবিকভাবেই চলছিল বিক্রমের অবতরণ প্রক্রিয়া আর তারপরই তার সঙ্গেই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিক্রমের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা চালাচ্ছে ইসরোর বিজ্ঞানীরা। এইদিন ইসরোর মিশন কন্ট্রোলরুম ছাড়ার আগে সেখানে হাজির সমস্ত কর্মী ও বিজ্ঞানীদের সম্মোধন জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।জীবনে উত্থান-পতন আসতে থাকবে। সাহস হারাবেন না। আপনাদের পাশে রয়েছি আমি। তিনি বলেন, এখনো সাফল্য অধরা থাকলেও আপনারা যা করেছেন সেটাই বা কম কী?আপনাদের পরিশ্রমেই ফের আনন্দে মাতবে দেশবাসী।

Related Articles

Close