কেরালার এই বিশেষ জায়গায় শুটিং হয়েছে আমিরের লাল সিং চাড্ডা, রামায়ণের সাথে রয়েছে একটি বিশেষ সংযোগ

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর শুরু হয়েছে কৌন বানেগা ক্রোড়পতির নতুন অধ্যায়। বচ্চন সাহেবের এই শোয়ের প্রথম অতিথি হয়েছিলেন আমির খান। এই সময় আমির খান ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার শুটিং সম্পর্কিত সেই বিষয়টি শেয়ার করেন যা খুব কম লোকই জানেন। কৌন বানেগা ক্রোড়পতির ১৪তম সিজন শুরু হয়ে গেছে। বলিউড পারফেকশনিস্ট আমির খান, অবসরপ্রাপ্ত মেজর ডিপি সিং এবং কর্নেল মিতালী মধুমিতা, অমিতাভ বচ্চনের অনুষ্ঠানের প্রথম অতিথি হয়েছিলেন।

অনুষ্ঠান শুরুর সাথে সাথে অনেক ঘটনা শেয়ার করা হয়। কেবিসির মঞ্চে আমির খানও ত্তানর সিনেমা ‘লাল সিং চাড্ডা’ সম্পর্কিত একটি অকথ্য সত্য শেয়ার করেন। আমির খান ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার শুটিং সম্পর্কিত সেই জিনিসটি শেয়ার করেছিলেন, যা অনেকেই জানেন না। কেবিসিতে জিজ্ঞাসা করা প্রশ্নের উত্তরে বলিউড পারফেকশনিস্ট বলেন, কেরালার বিখ্যাত জটায়ুপারা ভবনের কাছে ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার শুটিং হয়েছে। এটি বিশ্বের বৃহত্তম ভবনগুলির মধ্যে একটি।

জটায়ু ভবনটি কোল্লাম জেলার চাঁদায়মঙ্গলমে অবস্থিত। আমির চেয়েছিলেন যে, তিনি ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার শুটিং এমন একটি জায়গায় শুট করবেন, যেই জায়গা সম্পর্কে দুনিয়া জানে না। যখন মানুষ ফিল্মে দেখবেন, তখন জানবেন যে, আমাদের ভারতে এত বড় এবং সুন্দর কাঠামো আছে। টাউ আর্থ সেন্টারে জটায়ুর মূর্তিটি বিশ্বের সবচেয়ে বড় উঁচু মূর্তিগুলির মধ্যে একটি। বলা হয়, এটি তৈরীর উদ্দেশ্য শুধুমাত্র পাথর ও প্রকৃতিকে রক্ষা করা।

রামায়ণ অনুসারে, জটায়ু পাখি এই পাথরের উপর পড়ে গেছিল, অর্থাৎ এই কাঠামোর সঙ্গে রামায়ণের একটা বড় সম্পর্ক রয়েছে। কিংবদন্তি অনুসারে, পৌরাণিক পাখিটি মহিলার সুরক্ষার জন্য তাঁর জীবন উৎসর্গ করেছিল, তাই এটি সুরক্ষার প্রতীক হিসেবে বিবেচিত হয়। সোমবার থেকে কেবিসি শুরু হলেও এবার স্বাধীনতার গর্বের মহান উৎসব উদযাপনের কারণে কেবিসির বিশেষ পর্বটি রবিবার প্রচারিত হয়েছে।