প্রতিভা থাকা সত্ত্বেও গায়ের রং-এর জন্য হতে হয়েছিল বিদেশে অপমানিত, ক্ষোভ উগড়ে দিলেন কুমার শানু কন্যা

এবার বিস্ফোরক হয়ে উঠলেন শ্যানন কিন্তু কেন? এবং কে এই বা এই শ্যানন? আসুন জেনে নেওয়া যাক তার পরিচয়।শ্যানন হলেন ভারতের সংগীত জগতের এক উজ্জ্বল নক্ষত্র কুমার শানুর কন্যা। বলা যেতে পারে বাবার একদম যোগ্যতম উত্তরসূরী তিনি। তাই খুব ছোট বয়সেই ভারত ছেড়ে বিদেশে পাড়ি দিয়েছিলেন মায়ের সাথে। তাই লন্ডনের রয়েল স্কুল অফ মিউজিকে ইংরেজি ক্লাসিকাল সংগীতে শিক্ষা গ্রহণ করেছেন তিনি। যদিও তাঁর প্রথম শিক্ষাগুরু ছিলেন তার বাবা অর্থাৎ কুমার শানু নিজেই।

তবে খুবই অল্প বয়সে একজন উজ্জ্বলতম তারকা হয়ে উঠেছেন শ্যানন। শুধুমাত্র দেশের মাটিতে নয়, ইতিমধ্যেই আমেরিকার একজন বিখ্যাত গায়িকা হিসেবেও সুপরিচিত তিনি। অল্প বয়সের মধ্যেই নিজের জায়গাতেই সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছেন এমনকি তিনি সোনু নিগাম, শান, হিমেশ রেশমিয়ার সাথে কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন। তাই মেয়েকে পেয়ে বাবা হিসেবে কুমার শানুর যথেষ্ট গর্ববোধ হয়।

তবে এবারে একটি বিষয় নিয়ে তীব্র নিন্দা করলেন শ্যানন। তা হল বর্ণ বৈষম্য, আমেরিকার মানুষেরা কালো বর্ণের মানুষদের মানুষ হিসেবেই মনে করেন না, তা তিনি স্পষ্ট বুঝিয়ে দিলেন। কারণ তিনি এক সাক্ষাৎকারে নিজে বলেছেন যে শুধুমাত্র প্রতিভাই জীবনের শেষ কথা নয়, যার জন্য তিনি অনেক মানসিক চাপের শিকার হয়েছেন প্রতিনিয়ত। তাকে বর্ণবৈষম্যের মুখে পড়তে হয়েছে, তিনি অডিশন দিতে গিয়ে শুধুমাত্র গায়ের রঙের জন্য অনেক কথা শুনেছেন, যার জন্য পরবর্তীকালে তিনি বাড়িতে এসে কেঁদেছেন পর্যন্ত। কারণ অল্প বয়সে তিনি মানসিক চাপ সহ্য করতে পারেননি।

তবে তাঁর নিজের উপর আস্থা তিনি কখনো হারিয়ে ফেলেন নি, যে কারণে হয়তো তিনি আজ সুপ্রতিষ্ঠিত। এমনকি তিনি জীবন দিয়ে শিখেছেন তারকা হওয়ার আগে একজন ভালো মানুষ হওয়ার আগে দরকার। আরে ভালো মানুষ আজকের পৃথিবীতে বড়ই অমিল।