নারী ক্ষমতায়নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যুগান্তকারী রূপশ্রী প্রকল্প, কীভাবে করবেন আবেদন! বিস্তারিত জানতে

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার দরিদ্র পরিবারের কথা মাথায় রেখে নানারকম প্রকল্প ঘোষণা করেন৷ তার মধ্যে একটি হল কন্যাদের জন্য রূপশ্রী প্রকল্প (RUPASHREE PRAKALPA)৷ এই প্রকল্পে আর্থিক অনুদান দেওয়া হয়৷  দরিদ্র পরিবারের প্রাপ্ত বয়স্ক কন্যাদের বিয়ের সময় রূপশ্রী প্রকল্প এর মাধ্যমে ২৫,০০০ টাকা দরিদ্র পরিবারের কন্যাদের দেওয়া হয়।

 

রূপশ্রী প্রকল্পের (RUPASHREE PRAKALPA) উদ্দেশ্য দরিদ্র পরিবারে মেয়ের বিয়ের সময় কিছুটা সাহায্য করা৷ দরিদ্র পরিবারগুলিকে তাদের কন্যার বিয়ের সময় আর্থিক অভাবের জন্য অনেক রকম সমস্যার মুখোমুখি হতে হয় । আর দেখা যায়,  পরিবার বিয়ের জন্য বেশি সুদে টাকা ধার নেয়। এই জন্যই এই প্রকল্প শুরু করা হয়েছে। যাতে মেয়ের বিয়ের জন্য প্রয়োজনে বেশি সুদের হারে কারো কাছে ধার না নিতে হয়।

রূপশ্রী প্রকল্প এর মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটি জেলায় এই অনুদান দেওয়া হয়। পশ্চিমবঙ্গের যে কোনো জেলার দরিদ্র্য পরিবারে প্রাপ্ত বয়স্ক বিবাহযোগ্যা কন্যার বিয়েতে এই প্রকল্পের টাকা দেওয়া হয়৷ এক্ষেত্রে আবেদনকারীর কিছু যোগ্যতা প্রয়োজন।

আবেদনকারীর বয়স অবশ্যই ১৮ বছর হতে হবে।

আবেদনকারীকে  অবিবাহিত হতে হবে অর্থাৎ এটা আবেদনকারীর প্রথম বিবাহ হতে হবে। পশ্চিমবঙ্গে জন্ম গ্রহণ  করলে অথবা বিগত ৫ বছর ধরে পশ্চিমবঙ্গের অধিবাসী হলে তবেই রূপশ্রী প্রকল্পে আবেদন করতে পারবেন৷ অথবা আবেদনকারীর অভিভাবককে পশ্চিমবঙ্গের স্থায়ী বাসিন্দা হতে হবে।

RUPASHREE PRAKALPA

❂ আবেদনকারীর পরিবারের বছরে আয় ১.৫০ লক্ষ টাকার মধ্যে হতে হবে।

❂ আবেদনকারী যাকে বিয়ে করছেন সেই ছেলেটির বয়স অবশ্যই ২১ বছর হতে হবে।

❂ আবেদনকারীর ব্যাঙ্ক একাউন্ট থাকতে হবে। তবেই  ব্যাংকে রূপশ্রী প্রকল্পের টাকা দেওয়া হবে।

কিভাবে আবেদন করা যাবে?

১. রূপশ্রী প্রকল্পে আবেদনের জন্য  ফর্ম ডাউনলোড করতে হবে। অনলাইনে  এই ফর্মটি  ডাউনলোড করতে পারেন অথবা সরকারি অফিসগুলিতে গ্রামীণ এলাকায় ব্লক অফিসে, পৌরসভা অফিসে এই ফর্ম বিনামূল্যে পেয়ে যাবেন।

২. আবেদনের জন্য কিছু জরুরি ডকুমেন্ট :

❂ আবেদনকারীর বয়সের প্রমাণপত্র

❂ অবিবাহিত তার স্ব-ঘোষণাপত্র

❂ পরিবারে আয়ের প্রমাণপত্র

❂ বাসস্থানের প্রমাণপত্র

❂ ব্যাংকের পাসবই এর তথ্য ।

❂ প্রস্তাবিত বিবাহের  প্রমাণপত্র।

❂  বরের বয়সের প্রমাণপত্র।

মালদ্বীপ বা মরিশাস নয়: এটি মেঘালয়ের কোলে অবস্থিত এশিয়ার স্বচ্ছতম লেক

৩. আবেদনপত্র সঠিক ভাবে পূরণ করতে হবে৷  সঙ্গে সমস্ত প্রয়োজনীয় নথি প্রমাণপত্র  ও সার্টিফিকেট ব্লক অফিসে বা পৌরসভা অফিসে জমা দিতে হবে। এক্ষেত্রে মনে রাখা দরকার,  আবেদনকারীর স্থানীয় বাসস্থান এর কাছাকাছি  সরকারি অফিসে রূপশ্রী প্রকল্পে আবেদনের  ফর্ম জমা দিতে হবে  বিয়ের ৩০ দিন আগে।

 

বিয়ের তারিখ থেকে  ৬০ দিনের বেশি সময়ের আগে এই ফর্ম  জমা দেওয়া যাবে  না। প্রতিটি আবেদন পত্রের তথ্য খতিয়ে দেখা হবে৷  অনুমোদিত কর্মকর্তা (বিডিও /এসডিও /কমিশনার)  সমস্ত তথ্য যাচাই করার  পর যোগ্য এবং অযোগ্য ব্যক্তিদের বিবেচনা করবেন৷ তারপর যোগ্য ব্যক্তিদের টাকা পাঠানো হবে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে৷