ফিরিয়ে দিয়েছিলেন আমেরিকার কোটি টাকার চাকরি, গ্রামে এসে শুরু করেন ব্যবসা আজ ৬০০ কোটি টাকার মালিক

জীবনে কোনো কাজই কঠিন নয়। আমরা জীবনের সবচেয়ে কঠিন থেকে কঠিনতর কাজও করতে পারি এবং সেটা তখনই সম্ভব, যখন আমরা সেই কাজের প্রতি মনোযোগ দিতে পারি। জীবনে অনেক সময় এমন হয় যে, একজন মানুষ তার মনের মতো কাজ করতে পারেন না, যা তাকে সবসময় পিছনে ঠেলে দেয়। আজ আমরা এমন একজন ব্যক্তির কথা বলতে চলেছি, যিনি মাইক্রোসফটের মতো একটি বড় কোম্পানীর চাকরি ছেড়ে নিজের ব্যবসা শুরু করেন, যেখানে তিনি সফলও হন। সেই ব্যক্তি হলেন দিল্লির বাসিন্দা পীযূষ বানসাল। আসুন জেনে নেওয়া যাক পীযূষ বানসালের স্টার্টআপ সম্পর্কে কিছু কথা।


পীযূষ বনসাল এমন একটি ব্যবসা শুরু করেছিলেন, যা আগে কখনও চেষ্টা করা হয়নি, কিন্তু পীযূষ এই ব্যবসাটি শুরু করার আগে এর সমস্ত দিকগুলি পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে তদন্ত করেছিলেন এবং তারপরেই তিনি শুরু করেন তাঁর অনলাইন চশমা বিক্রির ব্যবসা। পীযূষ বানসাল ২০১০ সালে ব্যবসা শুরু করেন এবং এটির নাম দেন লেন্সকার্ট। এই ব্যবসার শুরুতে পীযূষ অনেক সংগ্রাম করেছিলেন, কিন্তু তিনি কখনই হাল ছাড়েননি এবং তাঁর কঠোর পরিশ্রমের ফল হল আজ পীযূষ বানসালের লেন্সকার্ট কোম্পানীটির আয় ১০০০ মিলিয়ন ডলারেরও বেশি। বর্তমানে পীযূষ, দেশের সফল ব্যবসায়ীদের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন।

পীযূষের জন্ম দিল্লির এক শিক্ষিত পরিবারে হয়েছিল। পীযূষের প্রাথমিক শিক্ষার পর পীযূষকে তাঁর বাবা আরো পড়াশোনার জন্য কানাডায় পাঠান, সেখান থেকে পীযূষ ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি নেন। এরপর পীযূষ তাঁর প্রথম চাকরি পান মাইক্রোসফটে। বিশ্বের সবচেয়ে বড় কোম্পানী হওয়ায় পীযূষ এখানে লাখ লাখ টাকা উপার্জন করতেন, কিন্তু তিনি এই কাজে খুশি ছিলেন না এবং তিনি জীবনে নিজের একটি ব্যাবসা শুরু করতে চেয়েছিলেন। এই চিন্তা নিয়েই পীযূষ ২০০৬ সালে ভারতে ফিরে এসে তাঁর ব্যবসা শুরু করেন। প্রথমে পীযূষ একটি ওয়েবসাইট তৈরি করেন ‘সার্চ মাই ক্যাম্পাস ডটকম’।


তিনি তাঁর এই প্রথম ওয়েবসাইটটি তৈরি করেছিলেন ছাত্রদের জন্য, যেখানে ছাত্ররা হোস্টেল থেকে শুরু করে খণ্ডকালীন চাকরি সম্পর্কেও দেখতে পারে। তিনি এই কাজে সফল হন। এরপর একসাথে চারটি ওয়েবসাইট তৈরি করেন এবং সেখানে কাজ শুরু করেন। এই ওয়েবসাইটগুলি মূলত চশমা, গহনা, ঘড়ি এবং ব্যাগ সম্পর্কিত ছিল, কিন্তু পীযূষ এই চারটি ওয়েবসাইতের মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিয়েছিলেন চশমাকে এবং এতে তিনি প্রচুর সাফল্য পান। আজ লেন্সকার্টের সমগ্র ভারত জুড়ে ১৫০০টিরও বেশি আউটলেট রয়েছে। ফ্র্যাঞ্চাইজি মডেলের ব্যবসাকে অবলম্বন করে পীযূষ লেন্সকার্টকে দেশের প্রতিটি অঞ্চলে প্রসারিত করেছেন। তাঁর কোম্পানী আজ চোখের চিকিৎসারও সুবিধা প্রদান করে।