মৃত্যুকে খুব সামনে থেকে দেখলাম “খতরো কে খিলাড়ির” ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনা নিয়ে মুখ খুললেন অভিনেত্রী তেজস্বী..

Colours TV এর একটি অতি জনপ্রিয় টিভি রিয়েলিটি শো হল khatron ke Khiladi, আর একটি হোস্ট করে থাকেন বলিউডের অতি চেনা পরিচিত মুখ রোহিত শেট্টি। এই মুহূর্তে “খাতরো কে খিলাড়ির সিজন-10 চলছে Colours TV তে। আর সেখানেই এক ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনা মুখে পড়লেন অভিনেত্রী তেজস্বী প্রকাশ। যেখানে এই অভিনেত্রী একেবারে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এলেন বলা চলে। এই বৃহস্পতিবার দিন নিজের ইনস্টাগ্রাম পোস্টে রিয়েলিটি-শো চলাকালীন নীজের সাথে ঘটে যাওয়া এক দুর্ঘটনার ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করলেন তেজস্বী যা গত সপ্তাহে টিভিতে দেখানো হয়েছে।

এইদিন তেজস্বী তার ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেল একটি ভিডিও শেয়ার করেন যেখানে তার চোখে রক্ত জমাট বেধে যাওয়ার একটি ছবি রয়েছে যা দেখে তার অনুগামীদের অনেকেই বিভিন্ন কমেন্ট করতে শুরু করেছেন।এ বিষয়ে স্পর্ট বয়কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মুখ খুললেন অভিনেত্রী তিনি জানান আমাকে অনেকেই বলেছে যে আমি প্রতিযোগিতা জিততে পারতাম। কারণ আমি এমন একজন যে জীবনে কোন কিছুর জন্য অনুশোচনা করি না। আর আমি সবসময় এটা বিশ্বাস করে থাকি যে জীবনে যা কিছু হয় ভালোর জন্যই হয়ে থাকে এক্ষেত্রে আমার বন্ধু আদা খানও আমাকে বলে যে যখনই জীবনের পথে বড় কোন সমস্যা আছে তখনই ঈশ্বর ছোট কিছু একটা করে সেই সমস্যা থেকে সরিয়ে নিয়ে যান।

 

যদিও এক্ষেত্রে আমার খতরো কে খিলাড়িতে যে যাত্রাপথ ছিল তা মোটেও সহজ ছিল না। কারণ এই রিয়েলিটি শো এর মধ্যেই আমার সাথে এক দুর্ঘটনা ঘটে যায় ফলে আমার চোখে ক্ষত সৃষ্টি হয় যেটি সেরে উঠতে প্রায় দু মাস সময় লেগে গিয়েছিল। আমাকে যখন ওয়াক্স করতে বলা হয়েছিল তখন আমার শরীরে অনেক জায়গা পুড়ে গিয়েছিল। 1 বছর কেটে যাওয়ার পরও আমার পায়ে সেই পুড়ে যাওয়া দাগ এখনো কষ্ট খুবই ভয়ঙ্কর। তারপর খতরো কে খিলাড়ি সীজন সেই দুর্ঘটনার কথা তুলে ধরলেন তেজস্বী যেখানে তিনি বললেন আমার কাছে ওই অভিজ্ঞতা মৃত্যুর কাছ থেকে ফিরে আসার।

আমি জলের মধ্যেই অজ্ঞান হয়ে গিয়েছিলাম যখন আমাকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়া হয় তখন আমি জানতে পারলাম চোখে আঘাত লাগার কথা। যেখানে চিকিৎসকরা জানান আমার চোখের মধ্যে রক্ত চলাচলের শিরা- উপশিরা পুড়ে গিয়েছে। আর তাছাড়া এই মুহূর্তে আমি দেশেও ফিরতে পারতাম না কারণ বিমানে ওঠার ক্ষেত্রে আমার নিষেধাজ্ঞা জারি ছিল।কারণ বলা হয়েছিল বিমানের মধ্যে বায়ুচাপ চোখের আঘাত আরও বাড়াতে পারে, ফলে আমি কিছুদিন বিদেশেই ছিলাম পরে শো-য়ের অন্যান্য সঙ্গীদের সঙ্গেই ফিরে এসেছিলাম।যদিও এক্ষেত্রে অনুরাগীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন আমাকে আপনারা ফাইনাল পর্বতে দেখতে পাবেন তাই হতাশ হতে হবে না এক্ষেত্রে আপনাদের। সকলে আমার পোস্টের পর যে হারে ভালোবাসা দেখিয়েছেন তাতে আমি অনেক অভিভূত।