২৫ কোটি টাকা খরচে তৈরি KGF 2 এর ক্লাইম্যাক্স সিন, সঞ্জয় দত্তের ক্যান্সারের কারণে ভয় পেয়ে গিয়েছিল গোটা টিম

সাউথ ইন্ডিয়ান সিনেমা (south industry) কেজিএফ চ্যাপটার ওয়ান (KGF chapter 1), ব্যাপক আকারে সাফল্য অর্জন করেছিল। এবার ভক্তরা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে রয়েছেন দ্বিতীয় পর্বের জন্য। সম্প্রতি নির্মাতারা কেজিএফ চ্যাপটার ২ (KGF chapter 2), সিনেমাটির ট্রেলার লঞ্চ করেছে যা প্রচুর পরিমাণে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছে। এই সিনেমা তৈরি করতে প্রায় ১০০ কোটি টাকা খরচ করে ফেলেছেন নির্মাতারা। সিনেমাটিতে শুধুমাত্র ক্লাইম্যাক্স তৈরি করার জন্য ২৫ কোটি টাকা খরচ করেছেন নির্মাতারা।

ঘনিষ্ঠ মহল থেকে জানা গেছে, প্রথম অধ্যায় দুরন্ত সাফল্য অর্জন করার পর পরিচালক কোনরকম খামতি রাখতে চাননি দ্বিতীয় অধ্যায় তৈরি করার ক্ষেত্রে। সিনেমাতে প্রথম এবং প্রধান চরিত্রে অভিনয় করবেন অভিনেতা যশ। এই চরিত্রের নাম রকি। রকের পাশাপাশি ভিলেন অধীরা, যে চরিত্রে অভিনয় করবেন সঞ্জয় দত্ত, এই চরিত্রটিও ভীষণভাবে মানুষের মনে সাড়া ফেলে দিতে চলেছে।

সিনেমাটির শেষ ২০ মিনিট তৈরি করার জন্য ২৫ কোটি টাকা খরচ করে ফেলেছেন নির্মাতারা। লার্জার দ্যান লাইফ, তৈরি করতে সব রকমের কৌশল অবলম্বন করেছেন নির্মাতা। তিনি আশাবাদী, সিনেমার শেষ ক্লাইম্যাক্স ভীষণভাবে উপভোগ করবেন সকলে।

আরও জানা গেছে, ২০২০ সালে যখন সঞ্জয় দত্ত ক্যান্সারের জন্য নার্সিংহোমে চিকিৎসাধীন ছিলেন, ঠিক তখনই এই সিনেমার শুটিং চলছিল। অভিনেতার অসুস্থতার কথা মাথায় রেখে নির্মাতারা ছবির শেষ দৃশ্য পরিবর্তন করেছিলেন। সঞ্জয় দত্ত এবং যশের একটি লড়াইয়ের দৃশ্য সিনেমা শেষে দেখানোর কথা ছিল যা বদল করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছিল কিন্তু সঞ্জয় দত্ত নির্মাতাকে আশ্বস্ত করেছিলেন, তিনি সিনেমার শুটিং ভালো ভাবে শেষ করতে পারবেন।

সঞ্জয় দত্ত এই সিনেমার জন্য নিজের সেরাটা দিতে চাইছিলেন। পরিচালক সহ অন্যান্য কলাকুশলীরা বারবার বারণ করা সত্ত্বেও সঞ্জয় দত্ত নিজে এসে এই সিনেমার শুটিং করেছেন। অন্যদিকে এই সিনেমার একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা যাবে অভিনেত্রী রবীনা ট্যান্ডনকে। একজন কাল্পনিক প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করবেন রবীনা ট্যান্ডন।

সিনেমার কাহিনী অনুসারে, অধীর রকিকে বাদ দেওয়ার পরিকল্পনা করেছিল রমিকা সেনের নির্দেশে। স্বাভাবিক ভাবেই বোঝা যাচ্ছে এই সিনেমা আগামী দিনে বড় ইতিহাস গড়ে তুলতে চলেছে। বর্তমানে যে সমস্ত সিনেমা মুক্তি পেয়েছে সেই সমস্ত সিনেমাকে পেছনে ফেলে দিয়ে এগিয়ে যাবে কেজিএফ চ্যাপটার টু।