শিবসেনা সঞ্জয় রাউতের “হারামখোর” বলে আক্রমণের পাল্টা জবাবে কাঙ্গনা যা বললেন শুনে আপনিও…

সুশান্ত বিতর্কের পর কঙ্গনা রানাউতের উপর শিবসেনার নেতারা ক্ষেপে উঠেছে। একের পর এক নেতা কঙ্গনাকে হুমকি দিয়েই চলেছে। প্রথমে সঞ্জয় রাউত কঙ্গনাকে হুমকি দিয়েছিলেন এ ঘটনা রীতিমতো সোশ্যাল মিডিয়া তে তোলপাড় হয়েছিল। গত শনিবার দিন শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত কঙ্গনাকে “হারামখোর মেয়ে” বলে তুলে ধরেছিলেন।তবে এবার কাঙ্গনা রানাওয়াতও সঞ্জয় রাউত এর এরকম এক মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিতে বাদ গেলেন না। তিনি এই বিষয়ে সঞ্জয় রাউত এর জবাব দেবার উত্তরে একটি সোশ্যাল মিডিয়াতে ভিডিও পোস্ট করেছেন।

 

যেখানে অভিনেত্রী কঙ্গনা বলেন আমাকে আপনি হারামখোর মেয়ে বলেছেন আপনি তো একজন মন্ত্রী জেনে থাকবেন নিত্যদিন দেশে প্রতি ঘন্টায় কত মেয়েকে ধর্ষণ করা হচ্ছে, শোষণ করা হচ্ছে। কখনো মেয়েদের কেটে কখনো অ্যাসিড দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়। অনেক ক্ষেত্রে তো আবার স্বামীর হাতেই নির্যাতন হতে হয় অনেক মহিলাদের আর এরকম ঘটনার জন্য প্রধান দায়ী হয়ে থাকে আপনার মত মানসিকতা। তাই এই দেশের মেয়েরা কখনো আপনাকে ক্ষমা করবে না যখন দেশে আমির খান, নাসিরুদ্দিনের মত লোকেরা বলে দেশে থাকতে ভয় লাগে তখন আপনারা উনাদেরকে হারামখোর বলেন না।

 

এর আগে আমি মুম্বাই পুলিশের বহুবার প্রশংসা করেছে কিন্তু যখন দেখলাম মুম্বাই পুলিশের সামনেই পালা ঘরের মতো ঘটনা ঘটে এমন কী সুশান্তের মৃত্যুর পর যখন তার বাবা থানাতে FIR করতে যায় তখন সে মুম্বাই পুলিশ সেই FIR নিতে অস্বীকার করে, তখন আমি সেই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। অভিনেত্রী আরো বলেন এক্ষেত্রে আমার মত প্রকাশের সম্পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে দেশে, আর আপনি যে কথাটি বলেছেন তার জন্য আপনার প্রতি তীব্র নিন্দা করছি, আপনারা বলেছেন আমায় মারবেন ঠিক আছে আমি 9 সেপ্টেম্বর আসছি তখন না হয় দেখা যাবে। অন্যদিকে অভিনেত্রী দিয়া মির্জা কেও এক্ষেত্রে সঞ্জয় রাউতের এরকম ধরনের মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করতে দেখা গিয়েছে।

এইদিন টুইটারের দিয়া মির্জা লিখে কঙ্গনাকে আক্রমণ করতে সঞ্জয় রাউত যে “হারামখোর” শব্দটি ব্যবহার করেছে সেটি তীব্র নিন্দা করছি আমি। এক্ষেত্রে তিনি জানান কোন কিছু সম্পর্কে আপনার আপত্তি জানানোর অধিকার রয়েছে তবে এরকম ধরনের শব্দ ব্যবহার করার জন্য আপনাকে প্রকাশ্যে ক্ষমা চাওয়া উচিত। প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা দেখতে পেয়েছি অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুত এর মৃত্যুর পর থেকে একের পর এক ঘটনা সাপেক্ষে মুখ খুলতে দেখা গিয়েছে এই অভিনেত্রীকে যেখানে মুম্বাই ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি এবং মুম্বাইয়ের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়েও কিছু মন্তব্য করেছিলেন যেগুলি পরবর্তীকালে বিতর্কের আকার ধারণ করে সেই বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন এই মুহূর্তে শিবসেনা নেতা সঞ্জয়।

তিনি অভিযোগ করেন মহারাষ্ট্র শিবাজী মহারাজ কে অপমান করেছে এক্ষেত্রে অভিনেত্রী কঙ্গনা যদিও অভিনেত্রী শিবাজী মহারাজ কে অসম্মান করেনি। এক্ষেত্রে অভিনেত্রীকে বাক স্বাধীনতা সম্পর্কে প্রশ্ন করতে দেখা গিয়েছিল। এক্ষেত্রে যখন মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অভিনেত্রীর মুম্বাই থাকা নিয়ে প্রশ্ন তোলায় মুম্বাইকে পাক অধিকৃত কাশ্মীর এর মতো লাগছে বলে টুইট করেছিল এই বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত।