দেশনতুন খবরবিশেষভারতীয় সেনা

আবারো এক বিরাট হামলার হাত থেকে রক্ষা পেল জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা, 20 কেজি IED বোঝাই গাড়ী করা হল উদ্ধার..

আবারও এক বড়োসড়ো হামলার হাত থেকে রক্ষা পেল জম্বু কাশ্মীরের পুলওয়ামা, প্রায় কুড়ি কেজি IED যুক্ত বিস্ফোরক বোমা গাড়িকে রূপে জম্মু-কাশ্মীর কে বড়সড় হামলার হাত থেকে রক্ষা করল ভারতীয় বাহিনী। আর বলে রাখি এই 20 কেজি IED যুক্ত গাড়িটি ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটাতে সক্ষম হতো যদি ভারতীয় বাহিনীর তরফ থেকে এটি রোখা না যেত। তবে বিস্ফোরক বোঝাই করা এই গাড়িটি কে থামাতেই চম্পট দেয় সেই গাড়ি চালক।

এই বিষয়ে পুলিশ ইন্সপেক্টর জেনারেল বিজয় কুমার জানান, তাদের কাছে গোয়েন্দার তরফ থেকে খবর মিলে যেখানে জানতে পারা যায় জম্মু কাশ্মীরের পুলওয়ামাতে এক বড়োসড়ো হামলার ছক কষছে কিছু হামলাকারী। আর এই খবর পাওয়া মাত্রই চেক পোস্টগুলিতে নাকা বন্দি করে দেওয়া হয় নিরাপত্তা বাহিনীর তরফ থেকে আজ বৃহস্পতিবার দিন সকালে একটি গাড়িকে চেক পয়েন্টে থামতে বলা হয় কিন্তু সেই গাড়িটি সেখানে না থেমে আরো গতি বাড়িয়ে ব্যারিকেড ভেঙ্গে যাওয়ার চেষ্টা করে চালক।

আর তার পরই নিরাপত্তারক্ষীরা গুলি চালাতে শুরু করে তবে সেই ঘটনাস্থল থেকে চালক কোন প্রকারে পালাতে সক্ষম হয়। কিন্তু সেই IED বোঝাই করা গাড়িটিকে সেখানেই ফেলে চলে যায় সেই চালক। গোয়েন্দা তরফ থেকে হামলার খবর পাওয়া মাত্রই এই আইইডি বোঝায় করা গাড়িটিকে খোঁজা হচ্ছিল যা পুলিশ ইন্সপেক্টর জেনারেল বিজয় কুমার জানান। তবে চালককে ধরতে পাওয়া না গেলেও বম্ব ডিসপোজাল স্কোয়াড এসে সেই IED সহ সেই গাড়িটিকে ধ্বংস করে দেয়।পুলিশ, সেনাবাহিনী ও আধা সামরিক বাহিনীর যৌথ অভিযানের দরুন এরকম এক হামলার ছক রোখা সম্ভব হল।

আপাতত গাড়িচালকের খোঁজ চালানো হচ্ছে।এখনো পর্যন্ত এই বিষয়টির পেছনে কাদের হাত রয়েছে তা জানতে পারা যায়নি তার পাশাপাশি এর পেছনে পাকিস্তানের হাত রয়েছে কিনা তা জানতে পারা যায় নি তবে প্রাথমিকভাবে এর পেছনে পাকিস্তানের হাত রয়েছে বলে অনুমান করা হচ্ছে। কারণ এটা প্রথম নয় যখন পাকিস্তান এরকম কাজ করতে পারে যেখানে গোটা বিশ্বজুড়ে করোনা প্রকোপ চলছে সেখানে কিভাবে এই করোনার প্রকোপ থেকে দেশের জনগণকে বাঁচানো যায় সে বিষয় গোটা বিশ্ব চিন্তাভাবনা করছে তবে সেখানে পাকিস্তান বারবার যুদ্ধবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে কিংবা সীমান্তের বেড়াজাল পেরিয়ে ভারতকে কিভাবে হানি আনা যায় তার চেষ্টায় উঠে পড়ে লেগেছে।

প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা জানি গত বছর ফেব্রুয়ারি মাসে পাকিস্তানের জঙ্গি সংগঠন জইশের সন্ত্রাসবাদীরা পুলওয়ামা তে বিরাট হামলা চালায় যার দরুন ভারতের 40 জন সিআরপিএফ জওয়ান প্রাণ হারান। আর এরপর থেকেই ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে সম্পর্ক আরো তিক্ত হয়ে ওঠে। আর তারপরই গত দু’মাসে পেয়ে সন্ত্রাসবাদী হামলার চেষ্টা চালায় জম্মু-কাশ্মীরে, যেখানে শহিদ হন অফিসারসহ 30 জন নিরাপত্তারক্ষী, তবে এর দরুন 38 জন সন্ত্রাসবাদী কে খতম ও করা হয়।

Related Articles

Back to top button